সোমবার, ৩০ নভেম্বর ২০২০, ০৭:৪৬ পূর্বাহ্ন
মুজিব বর্ষ
শিরোনাম :
গোপালগঞ্জের মধুমতি নদীতে অনুষ্ঠিত হয়ে গেল বঙ্গবন্ধু ১৭তম জাতীয় দূরপাল্লা সাঁতার প্রতিযোগিতা জয়পুরহাটে বিএনপির দুই নেতার সুস্থতা কামনায় দোয়া মাহফিল রংপুরে নিষিদ্ধ পলিথিন সংরক্ষণ ও বিক্রির অপরাধে আটটি প্রতিষ্ঠানকে ৪ লাখ টাকা জরিমানা অভিনব কায়দায় চার লাখ ৪০ হাজার ৩২৫ টাকা চুরি রাজবাড়ির বালিয়াকান্দিতে বাল্য বিবাহের দায়ে কনের বাবাকে জরিমানা রাজশাহী বাগমারায় এক গৃহবধূ কে যৌতুকের জন্য নির্যাতন থানায় মামলা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে বাংলাদেশকে কাঙ্খিত লক্ষে এগিয়ে নিতে হবে, আমির হোসেন আমু রংপুরে অনুষ্ঠিত হলো শিখন বিনিময় কর্মশালা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে স্মারকলিপি রংপুরে ইন্ডিপেনডেন্ট টিভির ক্যামেরা পারসনের ওপর হামলা সাংবাদিকদের অবস্থান ধর্মঘট কাউখালীতে ৫০ হাজার মিটার অবৈধ কারেন্ট জাল জব্দ

৫ বছরের চুক্তিতে নিয়োগ কাজ করছে ১৪ বছর

আহম্মদ আলী শাহিন, বেনাপোল (যশোর) প্রতিনিধিঃ
  • Update Time : রবিবার, ৮ নভেম্বর, ২০২০
  • ৩২ Time View

দেশের সর্ববৃহৎ স্থলবন্দর বেনাপোলে অধিকাংশ ক্রেন ও ফর্কলিফট অকেজো থাকায় মালামাল ওঠা নামা ও ডেলিভারি করা সম্ভব হচ্ছেনা। ফলে বন্দরে সৃষ্টি হয়েছে ভয়াবহ পণ্যজট। বিরাজমান জটিলতা সামাধান না হলে যে কোন সময় বন্ধ হতে পারে দু দেশের আমদানি রফতানি বানিজ্য।তবে বেনাপোল স্থল বন্দরে ফর্কলিফট ও ক্রেন সরবারহকারী ঠিকাদারী প্রতিষ্টান সিস লজিস্টিক্যাল সিস্টেম লিমিটেড বলছে ভিন্ন কথা। ৫ বছরের চুক্তিতে ১৪ বছর ধরে কাজ চলছে বন্দরে, বাড়েনি চুক্তি মুল্য, পরিশোধ করেনি কোম্পনীর পাওনা টাকা।

বন্দর সুত্রে জানাগেছে, বর্তমানে বেনাপোল বন্দরে ২৫ টন ধারণ ক্ষমতাসম্পন্ন ফর্কলিফট রয়েছে একটি ও পাঁচ টনের ফর্কলিফট রয়েছে পাঁচটি। এর মধ্যে ৪ টি দীর্ঘদিন ধরে অচল। ৪০ টন, ৩৫ টন ও ১৯ টনের ক্রেন আছে একটি করে, আর ১০ টনের ক্রেন আছে দুইটি। এসব ক্রেনের মধ্যে ৫ টি তাকে অধিকাংশ সময় অকেজো। বর্তমানে সবচেয়ে বড় ২৫ টনের ফর্কলিফটি অকেজো থাকায় বড় ধরনের বিপর্যয় ঘটছে মালামাল লোড-আনলোডে।

বন্দর ব্যবহারকারীরা বলছেন, বন্দরের গুদামে জায়গার অভাবে ওখান থেকে পণ্য বের করার পর নতুন পণ্য ঢোকানো হচ্ছে। খালাসের অভাবে পণ্যবোঝাই ট্রাক বন্দরের ভেতর দাঁড়িয়ে থাকছে দিনের পর দিন। ট্রাক থেকে পণ্য নামানোর অনুমতি মিললেও ক্রেন বা ফর্কলিফট মিলছে না। ফলে জায়গা ও ক্রেন সংকটে বিপাকে পড়েছেন বন্দর ব্যবহারকারীরা।

ফর্কলিফট ও ক্রেন সরবারহকারী ঠিকাদারী প্রতিষ্টান সিস লজিস্টিক্যাল সিস্টেম লিমিটেডের বেনাপোলের ম্যানেজার ফখরুল ইসলাম জানান,২০০৬ সালে আমাদের প্রতিষ্টান বন্দরের পন্য ওঠানো ও নামানোর জন্য বাংলাদেশ স্থল বন্দর কর্তৃপক্ষের সাথে ৫ বছরের চুক্তি করে।পরবর্তীতে বন্দর কর্তৃপক্ষ আর চুক্তি নবায়ন করেনি।আমাদের কোম্পানীর দেনা পাওনা পরিশোধ করেনি।আমরা অনেকটা বাধ্য হয়ে গত ১৪ বছর ধরে পুরাতন চুক্তিতে বন্দরের কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছি।১৪ বছর আগের চুক্তিতে বর্তমানে বন্দরের কার্যক্রম চালানো সম্ভব না। আমাদের দেনা পাওনা পরিশোধ করা হলে আমরা বন্দরের কার্যক্রম গুটিয়ে নেব।

ব্যবসায়ীদের এসব অভিযোগের কথা স্বীকার করে বেনাপোল স্থলবন্দরের উপ-পরিচালক মামুন তরফদার জানান, বর্তমানে প্রচুর পরিমান মালামাল আসছে ভারতে থেকে। সে জন্য জায়গার কিছুটা সমস্যা হচেছ। তবে বন্দরে ক্রেন ফরকলিপট এর সমস্যা আছে। আইনী জটিলতার কারনে সমস্যাগুলো হচেছ ,অচিরেই সম ধরনের সম্যসা সমাধান করা হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

posted by: মোঃ জহিরুল ইসলাম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
Copyright © by somoy songjog 24 | Developed by Md. Rajib