বুধবার, ২৮ অক্টোবর ২০২০, ১২:১৮ পূর্বাহ্ন
মুজিব বর্ষ
শিরোনাম :
ঝালকাঠিতে পুলিশের বাধায় যুবদলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর শোভাযাত্রা পন্ড ঝালকাঠিতে ১৭৮ জেলেকে চাল বিতরণ বিরামপুরে যুবদলের ৪২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত ডিমলায় মোটর সাইকেলের নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ৩-যুবক নিহত চুয়াডাঙ্গা পুলিশ অফিস ও জীবননগর থানা পরিদর্শ করলেন অতিরিক্ত ডিআইজি বানারীপাড়ায় জাতীয় বিজ্ঞান অলিম্পিয়াড প্রতিযোগীতার বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠিত বানারীপাড়ায় প্রয়াত মুক্তিযোদ্ধা খালেক মাঝীর সম্পত্তি জালিয়াতির মাধ্যমে জবরদখলের পায়তারা বাগেরহাটে নিষিদ্ধ সুন্দরী কাঠ জব্দ বাগেরহাটে ৩ দিন ব্যাপী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মেলা বাগেরহাটে ৩২০ পিস ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক

স্বেচ্ছাচারিতা ও জুলুমবাজ নারী রংপুর জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান

Reporter Name
  • Update Time : বুধবার, ২৬ জুন, ২০১৯
  • ৭০ Time View

আলো রহমান আখি, রংপুর ব্যুরোঃ

রংপুর জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এডভোকেট ছাফিয়া খানমের স্বেচ্ছাচারিতা, দুর্নীতি, উন্নয়নমুলক কাজের বরাদ্দ ব্যাংকে রেখে লভ্যাংশ আদায়ের প্রতিবাদে সদস্যরা জুলুমবাজ ও অত্যাচারী নারী চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করেছেন। গতকাল বুধবার বিকেলে জেলা পরিষদের হলরুমে পরিষদের সদস্যরা এক সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন । সেই সাথে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে চেয়ারম্যানের প্রতি অনাস্থা আনার হুমকি প্রদান করা হয়।
লিখিত বক্তব্যে রংপুর জেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মোহসিনা বেগম বলেন, রংপুর জেলা পরিষদের নির্বাচনের প্রায় আড়াই বছর হলেও একটিও জনকল্যাণমুখি প্রকল্প গ্রহণ করা হয়নি এবং উন্নয়নের বাজেটের টাকা ব্যাংকে রেখে লভ্যাংশ আত্মস্বাৎ করাসহ নানা দুর্নীতি, একক সিদ্ধান্ত, স্বেচ্ছাচারিতা, সদস্যদের প্রতি জুলুম অত্যাচার এবং সম্মানের হানি ঘটানো সহ অপকর্মে জড়িয়ে পরেছেন জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এডভোটে ছাফিয়া খানম। লিখিত অভিযোগে বলা হয়, আট উপজেলার বড় বড় ৩৯ টি জীবন্ত গাছ মরা ও ঝড়ে পরা দেখিয়ে একক সিদ্ধান্তে নিজের জামাইয়ের মাধ্যমে নাম মাত্র মুল্য দেখিয়ে কোটি টাকা আত্মস্বাথ করেছেন, সাবেক অরিয়েন্ট হলের আনুমানিক অর্ধশত কোটি টাকার ৫৪ শতক জমির মামলা চলমান থাকলেও মোস্তাফিজুর রহমানের সাথে ব্যক্তি স্বার্থে গোপন আতাতের মাধ্যমে কোটি টাকা লেনদেনের মাধ্যমে মামলায় অনাগ্রহ দেখাচ্ছেন। বিগত দুই অর্থ বছরে অসহায় দরিদ্রদের চিকিৎসা ও শিক্ষা অনুদান দেয়ার নামে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন, বিগত আড়াই বছরে কোটি কোটি টাকা রাজস্ব আয় হলেও তারঁ কোন হিসেব নিকেষ নাই, চেয়ারম্যান পরিষদের সিদ্ধান্ত গ্রাহ্য ও কার্যকর করেন না, মাসিক সভায় কার্যবিবরনী দেয়ার বাধ্যবাধকতা থাকলেও তিনি দেন না এবং পরে নিজের স্বার্থে মনগড়া কার্যবিবরনী তৈরী করেন এবং প্রয়োজন হলে পরিবর্তন করেন, পরিষদের প্রত্যেকটি উন্নয়ন কাজে সদস্যদের সম্পৃক্ত থাকার বিধান থাকলেও তিনি কোন সদস্যকে সম্পৃক্ত করেন না, নিয়ম অনুযায়ী ৭ টি স্থায়ী কমিটি থাকলেও স্থায়ী কমিটির সুপারিশ গ্রহণ করেন না, এডিপি নির্ধারিত সময়মত বাস্তবায়িত হয় না, এখন পর্যন্ত ২০১৭-২০১৮ অর্থবছরের এডিপি ৪০% বাস্তবায়ন হয় নাই, বরং ঐ অর্থ বছরের চার কোটি পঞ্চাশ লক্ষ টাকার প্রকল্পের দরপত্র আহবান না করে ব্যাংকে রেখে নিজে লভ্যাংশ ভোগ করছেন, এমনি করে চেয়ারম্যানের লোভ, দুর্নীতি, স্বেচ্ছাচারিতা, একঘেয়েমি, অযোগ্যতা, অদক্ষতার কারনে আজ দেশের মধ্যে ২য় রংপুর জেলা পরিষদ অকার্যকর হয়ে পরছে ফলে উন্নয়ন বঞ্চিত হচ্ছে রংপুর। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন ভাইস চেয়ারম্যান ফিরোজ হোসেন মিয়া ও ইয়াকুব আলী, সদস্য পারভীন আক্তার, শাহ মোঃ রফিকুল ইসলাম, আনোয়ার হোসেন, সেলিনা খাতুন, সিরাজুল ইসলাম প্রামানিক, সৈয়দা দিলনাহার, ফিরোজ হোসেন মিয়াসহ মোট ১৯ জন্য সদস্যদের মধ্যে ১৩ জন উপস্থিত ছিলেন। বাকী সদস্য ঢাকায় অবস্থান করায় উপস্থিত হতে পারে নাই। সেই সাথে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে চেয়ারম্যানের প্রতি অনাস্থা আনার হুমকি প্রদান করা হয়। এবিষয়ে অভিযুক্ত রংপুর জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এডভোকেট ছাফিয়া খানম প্রতিদিনের সংবাদকে বলেন, তাদের উপর অর্পিত দায়িত্ব উদাসীন ভাবে পালন করে। এর খোজ খবর নিলেই তারা আমার উপর ক্ষুবধ্য হয়। এই জন্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বলেই এগুলো করাচ্ছেন তারা । তিনি আরও বলেন, জেলা পরিষদের সম্পদ রক্ষা করা আমাদের সকলের দায়িত্ব। আমি আপনাদের করযোরে অনুরোধ করছি এগুলো ক্ষিতিয়ে দেখার জন্য।

নিউজটি শেয়ার করুন

posted by: সময় সংযোগ টুয়েন্টিফোর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
Copyright © by somoy songjog 24 | Developed by Md. Rajib