শনিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২১, ০৮:১৬ পূর্বাহ্ন
মুজিব বর্ষ
শিরোনাম :
বীর মুক্তিযোদ্ধা আনোয়ার হোসেনের রাষ্ট্রীয় মর্যাদায়য় দাফন সম্পন্ন তালতলীতে খাস জমি ও প্রাকৃতিক সম্পদে ভুমিহীন নারীর অধিকার প্রতিষ্ঠা শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত উজিরপুরের হারতায় স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থীর প্রচার প্রচারণায় চলচ্চিত্র তারকারা ত্রিশা‌লে নির্বাচন বাতিলের দাবিতে বিক্ষোভ আমতলীতে স্বাধীনতা যুদ্ধে শহীদ হওয়া পরিবার পেল প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘর ৩ মাস ধরে বেতন-ভাতা পাচ্ছেন না শিক্ষক- কর্মচারীরা ১০ মাস পরে উপজেলা আইনশৃঙ্খলা বিষয়ক মাসিক সভা অনুষ্ঠিত নওগাঁয় এনজিও পরিচালনার নামে দেড় কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে মানববন্ধন বাগেরহাটের মোল্লারহাটে ডিকেকে মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকর বিরুদ্ধে অর্থ আদায়ের অভিযোগ বাগেরহাটে এবার জাল দলিল,ষ্টাম্প, নকল সীলসহ প্রতারক জাফর আটক
সিলেট বিভাগের সকল জেলায় জেলা প্রতিনিধি আবশ্যক। আগ্রহীগন যোগাযোগ করুন somoysongjog24@gmail.com

রংপুরের পীরগঞ্জে হিন্দু সম্প্রদায়ের বাড়িঘরে হামলা, ভাংচুর, লুটপাট ও অগ্নিসংযোগের ঘটনায় আটক ৪২

আলো রহমান আঁখি, রংপুর ব্যুরোঃ
  • Update Time : সোমবার, ১৮ অক্টোবর, ২০২১
  • ৬৯ Time View
ফেসবুকে ধর্ম অবমাননার গুজব ছড়িয়ে চালানেয় রংপুরের পীরগঞ্জ উপজেলায় হিন্দু সম্প্রদায়ের বেশকিছু বাড়িঘরে হামলা, ভাংচুর, লুটপাট ও অগ্নিসংযোগের ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে সন্দেহভাজন ৪২ জনকে আটক করেছে পুলিশ।
তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। রোববার রাত ১০টার দিকে উপজেলার রামনাথপুর ইউনিয়নের মাঝিপাড়া-বটতলা ও বড়করিমপুর গ্রামে এ তান্ডব চালায় হামলাকারীরা। এ সময় বিক্ষুব্ধ জনতাকে ছত্রভঙ্গ করতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা অর্ধ শতাধিক রাবার বুলেট ও কাঁদানে গ্যাস ছুড়ে রাত ১ টার দিকে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।আজ সোমবার সকালে  জেলা প্রশাসন , পুলিশ প্রশাসন ও র‍্যাব ক্ষতিগ্রস্থ এলাকা পরিদর্শন করে আর্থিক সহয়িতা প্রদান করেন ।
একাধিক সুত্রে জানা গেছে, গত রোববার রাতে উপজেলার রামনাথপুর ইউনিয়নের বড়করিমপুর কসবা হিন্দু জেলে পল্লীর বাসিন্দা প্রশান্ত কুমারের ছেলে পরিতোষ কুমার (১৬) ফেসবুকের একটি পোস্টে মন্তব্যের ঘরে কাবাঘরের ব্যঙ্গ ছবি দেয়।  ফেসবুকে ধর্ম অবমাননার গুজব ছড়িয়ে চালানো এ হামলায় ২৫ থেকে ৩০টি পরিবারের ৬৫ টি বাড়িঘর আগুনে পুড়ে গেছে। গবাদিপশু, নগদ টাকা, খাদ্যসামগ্রী ও অলংকারসহ অনেক মালামাল লুট হয়েছে বলে দাবি করছেন ক্ষতিগ্রস্তরা।
রোববার রাত ১০টায় তান্ডবের খবর পেয়ে ছুটে আসে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা। দমকলের ৫টি ইউনিট যখন একদিকে আগুন নেভানোর জন্য চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন তখন আরেক দিকে আগুন ছড়িয়ে দিচ্ছিলেন হামলাকারীরা। চোখের সামনে দাউ দাউ করে ছড়িয়েপড়া আগুনের লেলিহান শিখায় পুড়ে যায় বেশকিছু ঘরবাড়ি ও দোকান। গবাদি পশুগুলো লুট হয়ে যাওয়ায় আহাজারি আর আর্তচিৎকারে ভারি হতে থাকে রাত। পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, এক যুবক ধর্ম অবমাননাকর ছবি ফেসবুকে পোস্ট বা কমেন্ট করেছেন এমন অভিযোগে ওই যুবকের বাড়ি ঘিরে ফেলে উত্তেজনা সৃষ্টিকারীরা। এক পর্যায়ে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে পুরো এলাকায়। এরপর ভয়ে ওই যুবক সপরিবারে পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে পুলিশ সেখানে গিয়ে ওই যুবকের বাড়িতে নিরাপত্তা জোরদার করে।
ঘটনার পরপরই পুলিশ সুপার, র‍্যাব-১৩-এর অধিনায়ক, জেলা ও উপজেলা প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে যান। রাত ১টায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে। পুরো ঘটনা নিয়ন্ত্রণে সেখানে রাতভর উপস্থিত থাকেন জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপারসহ প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। মোতায়েন করা হয় অতিরিক্ত বিজিবি, র‍্যাব ও  আর্ম পুলিশ।
পীরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিরোদা রানী রায়  প্রতিদিনের সংবাদকে বলেন , রোববার রাতে বটেরবাজার মাঝিপাড়ায় সংখ্যালঘুদের বাড়িতে হামলা, ভাঙচুর, লুটপাট ও অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটে। বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। তবে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ জানতে আরো সময় লাগবে।এঘটনায় ক্ষতিগ্রস্থদের পাশে দাঁড়িয়েছেন জেলা প্রশাসন সহ সরকার দলীয় সংগঠনের নেতাকর্মীরা। ইতোমধ্যে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ক্ষতিগ্রস্থদের পুনর্বাসনসহ বেশ কিছু উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এছাড়াও এ ঘটনায় জড়িত সবাইকে গ্রেফতারের প্রশ্রিুতি দিয়েছে পুলিশ।
সোমবার দুপুর দেড়টা পর্যন্ত এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে ৪২ জনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ প্রশাসন। তবে কারো নাম পরিচয় নিশ্চিত করা হয়নি। নাম প্রকাশ না করার শর্তে জেলা প্রলিশের এক কর্মকর্তা জানান, যার নেতৃত্বে এই হামলার ঘটনা ঘটেছে তাকে পুলিশের হেফাজতে নেওয়া হয়েছে। সে একটি দলের ইউনিয়ন পর্যায়ের নেতা বলে জানান তিনি।
এদিকে এ ঘটনার জন্য জামায়াত-শিবিরকে দায়ী করে রংপুর নগরে বিক্ষোভ মিছিল করেছে ছাত্রলীগ। মহানগর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ আসিফ বলেন, উস্কানিমূলক ফেসবুক পোস্ট নিয়ে ৫০টির মতো বাড়িঘর তারা পুড়িয়ে ফেলেছে। যারা ঘরবাড়িতে অগ্নিসংযোগ করেছে, তাদের বিচারের আওতায় আনতে সরকারের প্রতি আমরা অনুরোধ করছি।
রংপুরের পীরগঞ্জসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে মন্দিরে হামলা, ভাংচুরের প্রতিবাদে উতপ্ত হয়ে রংপুর নগরীর রাজপথ।  সোমবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত বিভিন্ন সংগঠন মন্দিরে হামলা, পূজামন্ডপ ভাংচুর, বাড়িঘরে অগ্নি সংযোগ লুটপাটের প্রতিবাদে নগরীরতে মিছিল সমাবেশ করে।আজ সকালে রংপুর প্রেসক্লাবের সামনে সবচেয়ে বড় মানববন্ধনও সমাবেশ করে বাংলাদেশ হিন্দু, খ্রিষ্টান বৈদ্ধ ঐক্য পরিষ্দ। জেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে শত শত নারী, পুরুষ ও শিশু তাদের নিরাপত্তা চেয়ে বিভিন্ন শ্লোগান দেন। এসময় বক্তারা বলেন, প্রতিনিয়ত এধরনের ঘটনাঘটলেও জড়িতদের বিচার না হওয়ায় তারা বীরদর্পে আবারো এসব ঘটনা ঘটাচ্ছে। এই ঘটনার সাথে যারাই জড়িত থাকনা কেন তাদেরকে আইনের আওতায় নিয়ে এসে বিচারের দাবী জানান। এছাড়াও, বাসদ, জাসদ, ছাত্রইউনিয়নসহ বিভিন্ন প্রগতিশীল ছাত্র সংগঠন নগরীতে মিছিল সমাবেশ করে।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিরোদা রানী রায়  আরো বলেন, ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করে সংখ্যালঘু পরিবারের এক যুবকের ফেসবুকে ষ্ট্যাটাস দেয়াকে কেন্দ্র করে কসবা হিন্দু পল্লীতে সংখ্যালঘুর বাড়ীতে হামলা, ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটেছে।
রংপুর জেলা পুলিশ সুপার বিপব্ল কুমার সরকার জানান, যার বিরুদ্ধে ধর্ম অবমাননার অভিযোগ তোলা হয়েছে তার বাড়ি থেকে আধা কিলোমিটার দূরে বেশকিছু হিন্দুদের বাড়িঘর ও দোকানপাটে আগুন দেয় হামলাকারীরা। ঘটনা নিয়ন্ত্রণে সেখানে কাঁদানে গ্যাসের শেল ও রাবার বুলেট ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।
জেলা প্রশাসক আসিব আহসান জানিয়েছেন, ক্ষগ্রিস্তদের ঘরবাড়ী মেরামত করা হবে। সরকারী সকল সহযোগিতা প্রদান করা হবে। রংপুর রেঞ্জের ডিআইজিদেবদাস ভট্টাচায বলছেন, নাশকতাকারীদের গ্রেপ্তাওে জন্য পুলিশ রাত থেকে অভিযান পরিচালনা কওে আসছে। আমারা ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে দুপুর পর্যন্ত ৪২ জনকে গ্রেফতার করেছি। আদের  অভিযান চলছে। যতদিন এই এলাকায় শান্তি ফিরে না আসবে তত দিন ওই এলাকায় পুলিশ মোতায়েন থাকবে বলে জানান রংপুর বিভাগের এই পুলিশ কর্মকর্তা।তিনি বলেন আমরা  একই সাথে ফেসবুকে ইসলাম ধর্মকে আবমাননা করে পোষ্ট দেয়া ওই ব্যাক্তিকেও খোজা খোজছি। তাকে ধরার জন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সকল সদস্য কার করে যাচ্ছে।
ঘটনা স্থল পরিদর্শন করে রংপুর বিভাগীয় কমিশনার আব্দুল ওয়াহাব ভুঞা জানান, ক্ষতিগ্রস্থদের দ্রুত পুর্নবাসন সহ সকল ধরনের সহযোগিতা করা হবে। আমারা চাই এখানকার মানুষ একে অপরের সাথে শান্তিতে বসবাস করুক। যারা দোষি তাদের কাউকে ছাড় দেওয়া হবেনা বলে জানান এই কর্মকর্তা।

নিউজটি শেয়ার করুন

posted by: কাওসার হামিদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
Copyright © by somoy songjog 24 | Developed by Md. Rajib