রবিবার, ২৫ অক্টোবর ২০২০, ০৭:৩৬ অপরাহ্ন
মুজিব বর্ষ
শিরোনাম :
এস এম আকবর সরদারকে পুনরায় ৫ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর হিসেবে দেখতে চায় এলাকাবাসী ঝালকাঠি মন্ডপে মন্ডপে মহা নবমী পূজা অনুষ্ঠিত ঝালকাঠি জেলা রাজস্ব বিষয়ক সভা জামালপুরে পূজামন্ডপ পরিদর্শনে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ এনামুল হক মোংলা বন্দরে বিদেশী জাহাজের সেকেন্ড অফিসারের মৃত্যু চুয়াডাঙ্গার দর্শনা থানা পুলিশের হাতে ভুয়া পুলিশ আটক ইলিশ আহরনে বিরত থাকা পৌরসভার ৪৯৬ জেলে পেল মানবিক খাদ্য সহায়তার চাল বামনায় গাছ থেকে পড়ে শ্রমিকের মৃত্যু নোয়াখালী সুবর্ণচরে মন্দিরে মন্দিরে অনুষ্ঠিত হচ্ছে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের শারদীয় দুর্গোৎসব বিরামপুরে উপজেলা চেয়ারম্যানের উদ্যােগে পূজা মণ্ডপে অনুদান প্রদান

যশোরের শার্শায় বোরো চাল সংগ্রহে ব্যাপক অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ

Reporter Name
  • Update Time : শনিবার, ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
  • ১০৩ Time View

যশোর প্রতিনিধি ॥

যশোরের শার্শা উপজেলায় ব্যাপক অনিয়ম ও দুর্নীতির মাধ্যমে বোরো চাল সংগ্রহ অভিযান শেষ হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। চাল সংগ্রহ নীতিমালা উপেক্ষা করে উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক, নাভারণ ও বাগআচড়া ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ও (ওসিএলএসডি) সীমাহীন দুর্নীতি অনিয়মের আশ্রয় নিয়ে ইতোমধ্যে কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন বলে সংশিষ্ট সূত্র নিশ্চিত করেছে। ঘুষ, দুর্নীতি, অনিয়ম ও অতি নিম্নমানের চাল সংগ্রহ করে এ অবৈধ অর্থ উপার্জন করেছেন। আর সংগ্রহ কমিটির নাম ভাঙ্গিয়ে তা জায়েজ করা হচ্ছে। এ ঘটনায় চালকল মালিকদের মধ্যে ব্যাপক ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। সূত্র জানায়, সরকারি ভাবে যশোরের শার্শা উপজেলায় বোরো চাল সংগ্রহে ৩ হাজার ৪ শত ৮২ মেট্রিক টন চাল বরাদ্দ আসে। এর মধ্যে বাগআঁচড়ায় ১ হাজার ৮২ মেট্রিক টন চাল বরাদ্দ দেয়া হয়। খাদ্য অধিদফতর চলতি মৌসুমের ৩১ আগস্টের মধ্যে চাল সরবরাহ করার জন্য চালকল মালিকের নির্দেশনা দেয়া হলেও পরবর্তীতে ১৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বর্ধিত করা হয়।
চলতি বছরের ৫ মে যশোর জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে চাল সংগ্রহ কমিটির মিটিংয়ে চাল ক্রয়ের সিন্ধান্ত নেয়া হয়। ওই মিটিংয়ে যশোরের জেলা প্রশাসক মো. আব্দুল আওয়ালের সভাপতিত্বে সিন্ধান্ত হয়, চাল সংগ্রহে বিভাগীয় নীতিমালা অনুসরণ করা হবে। কিন্তু সেই নিয়মনীতির তোয়াক্কা করেননি উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক ইন্দ্রজিদ সাহা ও নাভারণ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসিএলএসডি) আখতারুজ্জামন ও বাগআচড়া ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসিএলএসডি) হাসানুজ্জামান। চালের বাজার দাম থেকে সরকার নির্ধারিত দাম কেজি প্রতি ১০/১২ টাকা বেশি হওয়ায় লোভ সামলাতে পারেননি। তিনি চালকল মালিকদের চুক্তির জন্য উপজেলা অফিসে ডেকে এনে সংগ্রহ কমিটি ও উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের কেজি প্রতি তিন টাকা উৎকোচ না দিলে চুক্তি হবে না বলে সাফ জানিয়ে দেন। বাধ্য হয়ে চালকল মালিকরা উৎকোচের বিনিময়ে চুক্তি সম্পাদন করেন। সূত্র বলছে, উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক ইন্দ্রজিদ সাহা ও নাভারণ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসিএলএসডি) আখতারুজ্জামন ও বাগআচড়া ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসিএলএসডি) হাসানুজ্জামানের মাধ্যমে চালকল মালিকরা সরকারের সাথে চুক্তি সম্পাদন করেন। টন প্রতি ৩ হাজার টাকা হারে নাভারণ খাদ্যগুদাম ৬৯ লাখ ও বাগআঁচড়া খাদ্যগুদাম ৩২ লাখ ৪৬ হাজার টাকা উৎকোচ গ্রহণ করেছে বলে অভিযোগ করেছেন নাম প্রকাশ না করার শর্তে একাধিক চালকল মালিক। এ সব অনিয়ম দুর্নীতির সাথে জেলা খাদ্য কর্মকর্তা লেয়াকত আলী জড়িত রয়েছে।
এ বিষয়ে উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক ইন্দ্রজিদ সাহা বলেন, এসব অভিযোগ ভিত্তিহীন। চাল সংগ্রহে কোন টাকা লেনদেন হয়নি। অগোচরে কেউ নিম্নমানের চাল সবরাহ করতে পারে। নাভারণ খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসিএলএসডি) আখতারুজ্জামন বলেন, সরকার নির্ধারিত সময়ের পূবেই চাল সংগ্রহ শেষ হয়েছে। চাল সংগ্রহে কোন অনিয়ম করা হয়নি। বাগআঁচড়া খাদ্যগুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসিএলএসডি) হাসানুজ্জামান বলেন, এ অভিযোগের কোন সত্যতা নেই। সরকারি নিয়ম অনুযায়ী চাল ক্রয় করা হয়েছে। যশোরের জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক জেলা খাদ্য কর্মকর্তা লেয়াকত আলী বলেন এ বিষয়ে আমি কিছুই জানি না।

নিউজটি শেয়ার করুন

posted by: সময় সংযোগ টুয়েন্টিফোর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
Copyright © by somoy songjog 24 | Developed by Md. Rajib