শনিবার, ৩১ অক্টোবর ২০২০, ১২:২৯ অপরাহ্ন
মুজিব বর্ষ
শিরোনাম :
সুমন স্মৃতি গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট এর ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত ঝালকাঠিতে ঈদে মিলাদুন্নবীর দোয়া-মোনাজাতে ১৪ দলের মুখপাত্র আমির হোসেন আমু দর্শনা থানা পুলিশের বিশেষ অভিযানে পাখি ভ্যানসহ গ্রেফতার ৩ জবির স্বপ্নীল বাসের চালক জসিম আর নেই যমুনার চরাঞ্চলে কৃষকরা বাদাম চাষে ব্যস্ত বিরামপুরে পৌর আওয়ামীলীগের ৮নং ওয়ার্ড কমিটির বর্ধিত আলোচনা সভা বাগেরহাটে শিক্ষার্থীদের দুই দিন ব্যাপি আত্মরক্ষার কৌশল বিষয়ক প্রশিক্ষন বাগেরহাটে জাহানারা কাঞ্চনের মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল বিশ্ব নবীকে নিয়ে ব্যঙ্গ করার প্রতিবাদে মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত ফ্রান্সে মহানবীকে নিয়ে ব্যঙ্গচিত্র প্রর্দশনের প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত

মির্জাগঞ্জের পায়রা নদীর বেড়িবাঁধ ভেঙে ১০ গ্রাম প্লাবিত

Reporter Name
  • Update Time : শনিবার, ৪ মে, ২০১৯
  • ১৯৩ Time View

মোঃ কামরুজ্জামান বাঁধন, বিশেষ প্রতিনিধি॥
পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জে ঘূর্ণিঝড় ‘ফণী’র প্রভাবে মেন্দিয়াবাদ ও রামপুর গ্রামের পায়রা নদীর বাধঁ ভেঙ্গে ১০ গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। স্বাভাবিক জোয়ারের চেয়ে গতকাল শনিবার সকালেও পায়রা নদীর ৪-৫ ফুট পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় ৪১/৭ নং পোল্ডারের মেন্দিয়াবাদ গ্রামের ৫টি গ্রাম ও আয়লা কানকী রামপুর বেড়িঁবাধ ভেঙ্গে ৪টি গ্রামের রবি ফসলী মাঠ ও বসত বাড়ি প্লাবিত হয়েছে। এতে রানীপুর গ্রামের অর্ধশত বসত ঘরে পানি ঢুকে পড়ায় পরিবারগুলো পানি বন্দি হয়ে পড়ে। পানিতে প্লাবিত হওয়ায় এসকল পরিবারগুলো উনুনে আগুন জ্বালাতে পারেনি। পরিবারগুলোকে উপজেলা প্রসাশন ও উপজেলা চেয়য়ারম্যানের নিজ উদ্যোগে খাদ্য সহায়তা দেয়া হয়েছে পানিতে প্লাবিত এসকল পরিবারগুলোকে। এদিকে রামপুর কাজী বাড়ির পূর্বদিক থেকে পায়রা নদীর বাধঁ ভেঙ্গে রামপুর, কানকিরামপুর,পূর্ব রামপুর ও সন্তোশপুর গ্রাম প্লাবিত হয়। এতে ওই এলাকার রবি ফসলী মাঠের ফসল নষ্ট হওয়া সহ অনেক পুকুরের মাছও ভেসে গেছে। ওই এলাকার ইউপি সদস্য মোঃ শহিদুল ইসলাম বলেন, প্রতি বছরের এই সময়ে মেন্দিয়াবাদ এলাকায় পায়রা নদীর বাধঁ ভাঙ্গনের কারনে পানি ঢুকে বহু পরিবার পানিতে তলিয়ে যায়। ভাঙ্গা বাধঁ দিয়ে প্রতিদিন দু’বার করে জোয়ারে পানিতে প্লাবিত হচ্ছে। গতকালও পানি ঢুকে পড়ায় কোন পরিবার রান্না করতে পারেনি। ছেলে মেয়েদের নিয়ে না খেয়ে দিন কাটাতে হয়। তাই বাধঁটি মেরামতের জন্য উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে জোর দাবী জানান।এব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবদুল্লাহ আল জাকী বলেন, ঘূর্নিঝড় ফনি’র প্রভাবে মেন্দিয়াবাদ গ্রামের পায়রা নদীর কিছু অংশে বাধঁ থাকায় এবং পানির তোড়ে বাধঁ ভেঙ্গে পানি লোকালয়ে প্রবেশ করায় কয়েকটি গ্রামের মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়ে। ক্ষতিগ্রস্থ পরিবার গুলোর জন্য খাবারের ব্যবস্থা করা হয়েছে। মির্জাগঞ্জে ৪২টি সাইক্লোন সেল্টারে প্রায় সকল মানুষজন নিরাপদে আশ্রয়ে নিতে পেরেছে। ফনির কারনে মির্জাগঞ্জে প্রায় ৪ কিলোমিটার বাধঁ ক্ষতিগ্রস্ত ও বিধ্বস্ত হয়েছে। এগুলো অতিশিঘ্রই মেরামত করার ব্যবস্থা করা হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

posted by: সময় সংযোগ টুয়েন্টিফোর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
Copyright © by somoy songjog 24 | Developed by Md. Rajib