রবিবার, ০১ নভেম্বর ২০২০, ০৪:৩০ পূর্বাহ্ন
মুজিব বর্ষ

ভারতে বনগাঁর ট্রাক পার্কিং সিন্ডিকেটের হাতে জিম্মি বাংলাদেশি আমদানিকারকরা

আহম্মদ আলী শাহিন, বেনাপোল (যশোর) প্রতিনিধিঃ
  • Update Time : সোমবার, ১২ অক্টোবর, ২০২০
  • ৩২ Time View

দেশের সবচেয়ে বড় স্থল বন্দর বেনাপোলের। সড়ক পথে আমদানিকৃত পন্যের প্রায় ৮০ ভাগ পন্য এই বন্দর দিয়ে আমদানি করে থাকে আমদানি কারকরা। দেশের চলমান ১২টি স্থল বন্দরের ভিতর সব থেকে বেশি রাজস্ব আদায় হয় এই বন্দর দিয়ে। বেনাপোল বন্দরের মাধ্যমে ভারতের সঙ্গে প্রায় ৬০ হাজার কোটি টাকার আমদানি বাণিজ্য হয়। যা থেকে সরকার প্রায় ৫ হাজার কোটি টাকা রাজস্ব আদায় করে থাকে। এ কারনে বেনাপোল বন্দর বাণিজ্যিক দিক দিয়ে যথেষ্ট সম্ভাবনাময়ী বন্দর হিসাবে পরিচিতি হয়ে উঠেছে। তবে ভারত অংশে নানা অব্যবস্থাপনা আর অনিয়মে দীর্ঘদিন ধরে মারাত্মক ব্যাহত হচ্ছে এখানকার আমদানি বাণিজ্য।

বেনাপোল বন্দরের বিপরীতে ভারতের পেট্রাপোল বন্দরের বনগাঁয় ট্রাক পার্কিং সিন্ডিকেটের হাতে প্রায় দুই যুগ ধরে জিম্মি বাংলাদেশি আমদানিকারকরা। ভারতের বিভিন্ন প্রদেশ থেকে ট্রাক যোগে আমদানি পণ্য নিয়ে পেট্রাপোল বন্দরে ঢোকার আগেই অর্থ বাণিজ্যে মেতে উঠে একটি পক্ষ। সিরিয়ালের নামে পার্কিংয়ে জোর করে প্রতিটি ট্রাককে ২০ থেকে ২৫ দিন পর্যন্ত আটকে রাখা হচ্ছে। প্রতিদিন বাংলাদেশি আমদানি কারকদের ট্রাক প্রতি গুনতে হচ্ছে ২হাজার টাকা।এছাড়া দীর্ঘ সময়ে যেমন পণ্য চালান আটকা পড়ে, তেমনি পণ্যের গুণগত মান নষ্ট হচ্ছে। সময় মতো পণ্য সরবরাহের অভাবে শিল্প কলকার খানায় উৎপাদন ব্যাহত হচ্ছে। এতে বাণিজ্য স¤প্রসারণ যেমন ব্যাহত হচ্ছে, তেমনি লোকশানের মুখে পড়ে বেনাপোল বন্দর ছাড়ছেন ব্যবসায়ীরা। বিগত প্রায় দুই যুগ ধরে এ অনিয়ম চলে আসলেও সিন্ডিকেটের হাত থেকে কোনোভাবে মুক্তি মিলছে না ব্যবসায়ীদের। ব্যবসায়ীরা বলছেন, অনেক চেষ্টা করেও সিন্ডিকেট মুক্ত হতে পারেননি তারা। তবে বন্দর কর্তৃপক্ষ বলছেন, বিষয়টি সমাধানের চেষ্টা করছেন তারা।

বেনাপোল সিঅ্যান্ডএফ স্টাফ অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক সাজেদুর রহমান জানান, বনগাঁ পার্কিংয়ে চাঁদাবাজির কারণে অনেক ব্যবসায়ীরা এ পথে আমদানি বন্ধ করেছেন। এতে ব্যবসায়ীদের ক্ষতির পাশাপাশি সরকারও রাজস্ব হারাচ্ছে। বিভিন্ন সময় এ নিয়ে অভিযোগ তুললেও আজ পর্যন্ত পরিত্রাণ পায়নি আমদানিকারকরা।

বেনাপোল সিঅ্যান্ডএফ অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মফিজুর রহমান সজন জানান, প্রায় দুই যুগ ধরে ভারতীয় ট্রাক পার্কিং সিন্ডিকেটের হাতে বাংলাদেশি ব্যবসায়ীরা জিম্মি হয়ে পড়েছে। ভারতীয় হাই কমিশনারসহ বিভিন্ন দপ্তরে আবেদন জানিয়েও কোনো প্রতিকার পাচ্ছেন না।

বেনাপোল স্থলবন্দরের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক আব্দুল জলিল জানান, ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে অভিযোগ পেয়ে বনগাঁ পার্কিংয়ের অনিয়মের ব্যাপারে ভারতীয় কর্তৃপক্ষের সঙ্গে অনেকবার কথা বলা হয়েছে। আশা করা যাচ্ছে খুব দ্রæতই এর সমাধান হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

posted by: মোঃ জহিরুল ইসলাম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
Copyright © by somoy songjog 24 | Developed by Md. Rajib