শনিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৬:৫১ অপরাহ্ন
মুজিব বর্ষ
শিরোনাম :
তালতলীতে ছাত্রদলের কমিটিকে অবাঞ্চিত ঘোষনা করে ১১ নেতার পদত্যাগ টাকার বিনিময়ে কমিটি গঠনের অভিযোগ ঝালকাঠির নলছিটিতে ছাত্রদলের আহ্বায়ক কমিটিকে অবাঞ্চিত ঘোষণা শেরপুরে পৌর নির্বাচনে আ’লীগ-বিএনপির মনোনয়ন পেতে প্রার্থীদের দৌড়ঝাপ চুয়াডাঙ্গা -কুষ্টিয়া মহাসড়কে আলমসাধু ও মোটরসাইকেল সংঘর্ষে নিহত ১ সিপিএসসি, র‌্যাব-১৩ কর্তৃক রংপুর জেলার মিঠাপুকুর এলাকা থেকে ২১.৫ কেজি গাঁজা ও ৩৫৬ বোতল ফেন্সিডিলসহ ০২ জন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার, ট্রাক জব্দ। মাধবপুরে দ্রুতগামী এনা বাসের ধাক্কায় বৃদ্ধা নিহত, রাস্তা অবরোধ। ঝালকাঠিতে শহীদ মিনার ভেঙে বিদ্যালয়ের খেলার মাঠে অবৈধভাবে স্টল নির্মাণের অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন পরীক্ষায় অসদুপায় অবলম্বনের জন্য জবির ১৮ শিক্ষার্থীকে বিভিন্ন মেয়াদে শাস্তি খাগড়াছড়িতে সড়ক দূর্ঘটনায় মোটর সাইকেল আরোহী নিহত। মাধবপুর পেঁয়াজের মূল্য বৃদ্ধিতে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা

বেনাপোল বন্দরে শুল্ক ফাঁকি ও অব্যবস্থাপনা ৩ বছরে রাজস্ব ঘাটতি ৪ হাজার ৯১৪ কোটি টাকা

বেনাপোল (য‌শোর) প্রতিনিধিঃ
  • Update Time : সোমবার, ৩১ আগস্ট, ২০২০
  • ২৫ Time View

নানা অনিয়ম ও অব্যবস্থাপনার মধ্যে দিয়ে চলছে বেনাপোল কাস্টমস ও বন্দরের কার্যক্রম। শুল্ক ফাঁকি ও বন্দর থেকে পন্য চুরি,মিথ্যা ঘোষনায় পন্য আমদানি যেন নিয়মে পরিনত হয়েছে। আটক হচ্ছে কোটি কোটি টাকার অবৈধ্য পন্য। ইতোমধ্যে ভায়াগ্রাসহ একাধিক আমদানি নিষিদ্ধ পন্য আটক করেছে কাস্টমস ও শুল্ক ও গোয়েন্দার সদস্যরা। অভিযোগ রয়েছে বেনাপোল কাস্টমস ও বন্দরের কিছু কর্মকর্তাদের প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ সহযোগিতায় বন্দর থেকে শুল্ক ফাঁকি ও পন্য চুরির ঘটনা ঘটে থাকে। খোদ বেনাপোল স্থল বন্দরের সিবিএ নেতাদের নামে রয়েছে বন্দর থেকে পন্য চুরির মামলা। এ কারনে গত ৩ অর্থ বছরে রাজস্ব আহরনে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের বেঁধে দেওয়া লক্ষমাত্রা পূরন করতে পারেনি বেনাপোল কাস্টমস হাউজ। রাজস্ব আদায়ে মারাতœক ধস নেমেছে। বেনাপোল কাস্টমস হাউসের সুত্রে জানা গেছে গত ২০১৭-১৮ অর্থবছর থেকে ২০১৯-২০ অর্থবছরে এ বন্দরে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের লক্ষ্য মাত্রার চেয়ে ৪ হাজার ৯১৪ কোটি টাকা রাজস্ব কম আয় হয়েছে। ২০১৭-১৮ অর্থ বছরে ১৭৬ কোটি,২০১৮-১৯ অর্থ বছরে ১হাজর ৩৪৬ কোটি টাকা ও সর্বশেষ ২০১৯-২০ অর্থ বছরে ৩ হাজার ৩৯২ কোটি টাকা রাজস্ব কম আদায় হয়েছে। ২০২০-২১ অর্থবছরে বেনাপোল বন্দরে আমদানি পণ্য থেকে রাজস্ব আয়ের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ৬ হাজার ২৪৪ কোটি টাকা। ব্যবসায়ী বলছেন, প্রয়োজনীয় অবকাঠামো উন্নয়ন ও অনিয়ম রুখতে পারলে আবারো ব্যবসায়ীরা এ বন্দরে ফিরবেন গতি ফিরবে রাজস্ব আয়ে। আর বন্দরের কর্মকর্তারা বলছেন বন্দর উন্নয়নে বিভিন্ন পরিকল্পনা তাদের রয়েছে।

জানা যায়,দেশের চলমান ১২টি স্থলবন্দরের মধ্যে সবচেয়ে বড় আর বেশি রাজস্ব আয় হয় বেনাপোল থেকে। বেনাপোল স্থলবন্দর থেকে ভারতের প্রধান বাণিজ্যিক শহর কলকাতার দূরত্ব মাত্র ৮৪ কিলোমিটার। যোগাযোগ ব্যবস্থা সহজ হওয়ায় ব্যবসায়ীদের এপথে আমদানি,রফতানি বাণিজ্যে আগ্রহ বেশি। তবে বন্দরের প্রয়োজনীয় অবকাঠামো উন্নয়ন না হওয়ায় মারাতœক ভাবে ব্যহত হচ্ছে বাণিজ্যিক কার্যক্রম। প্রায় প্রতি বছর রহস্য জনক অগ্নিকান্ডের ফলে ক্ষতিপূরন না পেয়ে পথে বসছেন ব্যবসায়ীরা। শুল্ক ফাঁকি দিয়ে বিভিন্ন কৌশলে বেড়েছে পণ্য পাচার। পন্য পাচার প্রতিরোধে দির্ঘ দিন ধরে ব্যবসায়ীদের দাবী ছিল বন্দরে সিসি ক্যামেরা স্থাপনের। কিন্তু আজও পর্যন্ত তা কার্যকর হয়নি।

বেনাপোল সিঅ্যান্ডএফ এ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মফিজুর রহমান সজন বলেন, প্রতিবছর বেনাপোল বন্দর থেকে প্রায় ৫ হাজার কোটি টাকার রাজস্ব আসে। কিন্তু এ বন্দর থেকে এত টাকা সরকারের আয় হলেও প্রয়োজন অনুযায়ী বন্দরের অবকাঠামো উন্নয়ন হয়নি। বার বার বন্দরের অবকাঠামো উন্নয়ন নিয়ে বন্দও কর্তৃপক্ষকে বলা হলেও কাঙ্খিত উন্নয়ন আজও হয়নি। ফলে ব্যবসায়ীরা অন্য বন্দরে চলে যাওয়ায় রাজস্ব আয় কমেছে।

আমদানি পণ্যেও নিরাপত্তায় বন্দরে সিসি ক্যামেরা লাগানোর জন্য দির্ঘ দিন ধরে ব্যবসায়ীরা দাবী জানিয়ে আসলেও আজ পর্যন্ত তা বাস্তবায়ন হয়নি। ফলে একদিকে শুল্ক ফাঁকিতে সরকারের রাজস্ব কমছে অন্যদিকে আর্থিক ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে ব্যবসায়ীরা। বেনাপোল বন্দরের উপপরিচালক আব্দুল জলিল বলেন, ইতিমধ্যে বন্দরে বেশ কিছু উন্নয়ন কাজ শেষ হয়েছে। এছাড়া সিসি ক্যামেরা,নতুন জায়গা অধিগ্রহন, পণ্যগার নির্মানসহ বেশ কিছু পরিকল্পনা তাদেও রয়েছে। এসব কাজ শেষ হলে অনিয়ম বন্ধসহ বাণিজ্যে গতি ফিরবে বলে তিনি জানান।

নিউজটি শেয়ার করুন

posted by: মোঃ জহিরুল ইসলাম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
Copyright © by somoy songjog 24 | Developed by Md. Rajib