সোমবার, ২৬ অক্টোবর ২০২০, ০১:১৮ অপরাহ্ন
মুজিব বর্ষ
শিরোনাম :
মেয়েরা জন্মগত ভাবে নারী নয়- এ বি সানোয়ার হোসেন বিরামপুরে দিওড় ইউনিয়নে পূজামন্ডপ পরিদর্শন ও আর্থিক অনুদান প্রদান করেন আঃ মালেক মন্ডল চুয়াডাঙ্গা জেলায় কর্মরত জাহাতাব উদ্দীনও রুকমিয়াকে র‍্যাংক ব্যাচ পরিয়ে দিলেন এসপি জাহিদুল ইসলাম বিরামপুরে পৌর মেয়রের পূজা মন্ডপ পরিদর্শন ও আর্থিক অনুদান প্রদান জয়পুরহাট পৌর এলাকার ২৬টি পূজা মন্দিরে ৩ লাখ টাকা আর্থিক অনুদান প্রদান মেয়র মোস্তাক বয়স্ক ভাতায় স্বজনপ্রীতি ও অনিয়ম। বাগেরহাটে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে অতিরিক্ত ফি আদায়ের অভিযোগ বিভিন্ন দপ্তরে এস এম আকবর সরদারকে পুনরায় ৫ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর হিসেবে দেখতে চায় এলাকাবাসী ঝালকাঠি মন্ডপে মন্ডপে মহা নবমী পূজা অনুষ্ঠিত ঝালকাঠি জেলা রাজস্ব বিষয়ক সভা

বঙ্গবন্ধু হত্যায় জড়িতদের খুঁজতে কমিশন গঠনের দাবি

Reporter Name
  • Update Time : শনিবার, ১৭ আগস্ট, ২০১৯
  • ১৭৬ Time View
অনলাইন ডেস্কঃ

বঙ্গবন্ধুর খুনিদের বিচার ন্যায় প্রতিষ্ঠার জন্যই করা হয়েছে। জাতির পিতার হত্যার প্রতিশোধ তখন নেওয়া হবে, যখন বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ে উঠবে। সে স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ গড়ার কাজ করছে সরকার।

শনিবার (১৭ আগস্ট) জাতীয় প্রেসক্লাবে ‘মুক্তিযুদ্ধের চেতনার সাংবাদিক ফোরাম’ আয়োজিত জাতীয় শোক দিবস ও বঙ্গবন্ধুর ৪৪তম শাহাদত বার্ষিকী উপলক্ষে এক আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, জাতিসত্তা প্রতিষ্ঠার পর কোনো বাঙালি বাংলাকে শাসন করতে পারেনি। শেষ নবাব ছিলেন ভিনদেশি শাসক। বঙ্গবন্ধু প্রথম ব্যক্তি যিনি বাঙালি হয়ে বাংলার শাসক ছিলেন। কিন্তু, যারা বাংলা ভাষা চায়নি, বাংলাদেশ চায়নি, তারাই বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে। আজ সময়ের দাবি, একটা কমিশন করে এ হত্যার পেছনে জিয়াউর রহমানসহ যারা জড়িত, সেসব কুশীলব-পটভূমি রচনাকারীদের মুখোশ উন্মোচন করা।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ভিসি আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক বলেন, বঙ্গবন্ধুকে হত্যা মানে একটা দেশ ধ্বংস করা। মুক্তিযুদ্ধের চেতনা মুছে ফেলাই ছিল ষড়যন্ত্রকারীদের উদ্দেশ্য। ষড়যন্ত্র থেমে নেই। তারা এ আগস্ট মাসকেই বারবার বেছে নেয়। ১৭ আগস্ট তারা সিরিজ বোমা হামলা করে, ২১ আগস্ট শেখ হাসিনাকে হত্যার উদ্দেশ্যে বোমা হামলা চালায়। সাধারণ নাগরিকদের জানার অধিকার রয়েছে, এসব হত্যা বা ষড়যন্ত্রের পেছনে কারা আছে। এটা নিয়ে গবেষণার দরকার আছে, কমিশন গঠনের প্রয়োজন আছে।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য কনক কান্তি বড়ুয়া বলেন, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট আহতদের সেবায় আমরা তৎকালীন ঢাকা মেডিক্যালের ছাত্ররা এগিয়ে আসি। তাদের চিকিৎসা চলে আর পুলিশি সহযোগিতায় নিহতদের পোস্টমর্টেমের কাজ শেষ হয়। ইতিহাসের এ জঘন্য হত্যার আসল রহস্য বের করতে কমিশন গঠনের দাবি জানাই। জাতি জানতে চায়, এ ঘটনায় আর কারা জড়িত ছিল।

সভাপতির বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রীর সাবেক তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী বলেন, বঙ্গবন্ধু ছিলেন সাংবাদিকবান্ধব। হত্যার মাধ্যমে তার আদর্শকে মুছে ফেলতে চেয়েছিল। কিন্তু, তারা সফল হয়নি। আমরা মুক্তিযুদ্ধের চেতনার সাংবাদিকরা তার আদর্শ প্রচার করেছি, এখনো করছি।

জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক মঞ্জুরুল আহসান বুলবুল বলেন, বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মাধ্যমে পুরো জাতিকে হত্যার উদ্দেশ্য ছিল ঘাতকদের। আমাদের শুধু জাতির পিতার হত্যাকারীদের বিচার করলেই হবে না, এ নৃশংস হত্যার পেছনে যারা আছে, তাদেরও বিচার হওয়া উচিৎ।

ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক সোহেল হায়দার চৌধুরীর পরিচালনায় আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক আব্দুস সবুর, জাতীয় প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ফরিদা ইয়াসমিন, সাংবাদিক নেতা কুদ্দুস আফ্রাদ, জাকারিয়া কাজল, ওমর ফারুক, আজিজুল ইসলাম ভুইয়া, বরুণ ভৌমিক, রফিকুল ইসলাম রতন, খায়রুজ্জামান কামাল প্রমুখ।

নিউজটি শেয়ার করুন

posted by: সময় সংযোগ টুয়েন্টিফোর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
Copyright © by somoy songjog 24 | Developed by Md. Rajib