সোমবার, ১২ এপ্রিল ২০২১, ১০:২১ পূর্বাহ্ন
মুজিব বর্ষ
শিরোনাম :
রংপুর বিভাগে মোট করোনায় আক্রান্ত দাঁড়ালো ১৬ হাজার ৮শ’ ৬০ জন নতুন আক্রান্ত ৬৩ জন কলারোয়ায় ১০ বোতল ফেনসিডিলসহ দুই নারী ও এক পুরুষসহ আটক-৩ কক্সবাজারে র‍্যাবের পৃথক অভিযানে ইয়াবা নিয়ে রোহিঙ্গাসহ আটক ৩ জামালপুরে আলুবীজের দাম বাড়ানোর দাবিতে সংবাদ সম্মেলন বর্তমান সরকার কৃষি ও কৃষকের কল্যাণে কাজ করছে- হুইপ ইকবালুর রহিম ইডেন মহিলা কলেজে বাংলাদেশ হিউম্যান হেল্পিং সোসাইটি’র আহ্বায়ক কমিটি গঠিত বানারীপাড়া সৈয়দকাঠী’র নলশ্রীতে পাওনা টাকা চাওয়াকে কেন্দ্র করে মারামারির অভিযোগ পাওয়া গেছে। নীলফামারীতে একই কলেজের ৪০জন শিক্ষার্থী পেয়েছে মেডিকেল কলেজে ভর্তির সুযোগ, আর্থিক সংকটের কারণে কিছু শিক্ষার্থী ভর্তি হতে খাচ্ছে হিমসীম গাজীপুর অজ্ঞাত পরিচয়ে বৃদ্ধার মরদেহ উদ্ধার জীবিত ব্যক্তি ভোটার তালিকায় মৃত!

নীলফামারীতে স্বামীর হাতে স্ত্রী হত্যা শিশু মেয়ের জাবানবন্দিতে রহস্য উদঘাটন

মোঃ সোহেল রানা , নীলফামারী
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ৮ এপ্রিল, ২০২১
  • ২৯ Time View

হাত দিয়ে গলা চিপে ধরলে অজ্ঞান হয়ে পড়ে স্ত্রী রোজিনা আক্তার দুলালী(২৫)। সেটিকে আত্মহত্যা হিসেবে চালিয়ে দিতে ওড়না দিয়ে গলায় ফাঁস লাগিয়ে সিলিং ফ্যানের সাথে ঝুলিয়ে দেয় স্বামী ইউনুস আলী(৩৮)। পরে সৈয়দপুর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথেই মারা যায় স্ত্রী রোজিনা। ঘটনাটি ঘটেছিল গেল বছরের ১১ ডিসেম্বর সদর উপজেলার সংগলশী ইউনিয়নের শীমলতলী নামক স্থানে। এই ঘটনার রহস্য উন্মোচন করে নীলফামারী থানা পুলিশ। মৃত রোজিনা আক্তার দুলালীর মেয়ে মারিয়া আক্তারের (০৫) জবানবন্দিতে উন্মোচিত হলো মায়ের হত্যাকান্ডের রহস্য। নীলফামারী থানা পুলিশ সূত্রে জানা যায়, স্বামী ইউনুস আলী তার প্রথম স্ত্রী রুমানা বেগম (ছদ্মনাম) কে না জানিয়ে রোজিনাকে বিয়ে করেন । দুই স্ত্রী থাকার কারনে ইউনুসের সংসারে প্রতিনিয়ত চলতো পারিবারিক কলহ। সদরের সংগলশী ইউনিয়নের শিমুলতলীর ওমর আলীর ভাড়া বাসায় ভাই রাকিবুল এবং তার স্ত্রী সিমরানের সাথে থাকতেন রোজিনা। ভাই ও ভাবী বাসার বাহিরে যাওয়ায় বাচ্চাদের নিয়ে সন্ধ্যায় বাসায় ছিলেন রোজিনা। আর এই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে স্বামী ইউনুস আলী রোজিনাকে হত্যার চেষ্টায় হাত দিয়ে গলা চিপে ধরে। এমতাবস্থায় রোজিনা অজ্ঞান হয়ে পড়লে তাকে ওড়না দিয়ে গলায় ফাঁস লাগিয়ে সিলিং ফ্যানের সাথে ঝুলিয়ে রাখে। এসময় ঘরে থাকা মেয়ে মারিয়া(০৫) যাতে ঘটনাটি অন্য কাউকে না বলে সেজন্য দরজা বন্ধ করে নানা ধরনের ভয়ভীতি দেখায়। ঘটনার কিছু সময় পর রোজিনার ভাই ও ভাবি বাহিরে থেকে বাসায় ফিরার পথে ইউনুসের সাথে দেখা হলে রোজিনা ঘুমিয়েছে বলে জানায়। কিছুক্ষন পর ইউনুস পুনরায় বাড়িতে ফিরে এসে হত্যার ঘটনাকে আত্মহত্যা হিসেবে চালিয়ে দেওয়ার কৌশল হিসেবে তার স্ত্রীর নাম ধরে ডাকে এবং তার স্ত্রী ঘরের দরজা না খোলায় সে তার শ্যালক রাকিবুলকে জানায় তার বোন ফ্যানের ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। রাকিবুল তখন অন্য ঘরের সিলিং এর উপর দিয়ে তার বোনের ঘরে প্রবেশ করে গলায় প্যাচানো ওড়না কেটে তার বোনকে নামায় ও সৈয়দপুর হাসপাতালে নেয়ার পথে মারা যায় রোজিনা।ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে সদর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মাহমুদ উন নবী বলেন, মরদেহের ময়না তদন্তের রিপোর্টের ভিত্তিতে জানা যায়, রোজিনা হত্যাকান্ডের শিকার হয়েছে। আমাদের এসপি স্যারে প্রত্যক্ষ দিক নির্দেশনায় আমরা হত্যাকান্ডের রহস্য উন্মোচন করি। এছাড়া শিশু মারিয়া গত ৬এপ্রিল বিজ্ঞ আদালতে ঘটনার বিষয়ে ফৌজদারী কার্যবিধি ১৬৪ ধারা মোতাবেক জবানবন্দি প্রদান করেছে। ইউনুস আলীও গত ৭এপ্রিল গ্রেফতারপূর্বক বিজ্ঞ আদালতে হত্যাকান্ডের ঘটনার বিস্তারিত উলে¬খ করে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করেছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

posted by: সময় সংযোগ টুয়েন্টিফোর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
Copyright © by somoy songjog 24 | Developed by Md. Rajib