সোমবার, ২৫ জানুয়ারী ২০২১, ০৪:৪৮ পূর্বাহ্ন
মুজিব বর্ষ
শিরোনাম :
চুয়াডাঙ্গার জীবননগরে প্রধান শিক্ষকের হাত থেকে বিদ্যালয় বাঁচতে মানববন্ধন কুয়াকাটায় ট্যুরিস্ট পুলিশের উদ্যোগে বিচ ক্লিনিং চুয়াডাঙ্গা জেলা পুলিশের সহযোগিতায় ও আল্লাহর রহমতে জীবন ফিরে পেল অসহায় বৃদ্ধ আকতার শেখ চুয়াডাঙ্গায় করোনা ভাইরাস ভ্যাকসিন প্রদান কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে সম্পাদনের জন্য জেলা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত মহানগরীর ১৯নং ওয়ার্ডে রংপুর রয়্যালস রিসোর্ট এন্ড রিক্রিয়েশনাল পার্ক এর উদ্যোগে শীতবস্ত্র (কম্বল) বিতরণ পেট্রোল পাম্পে ওজনে কম, ছদ্মবেশে ধরলেন ম্যাজিস্ট্রেট বাগেরহাটে পেশাদার ব্যাবসায়ী কুদ্দুস ৪ কেজি গাজাসহ আটক-১ দিনাজপুরে বিপুল পরিমানের যৌন উত্তেজক সিরাপ ও ইয়াবাসহ আটক ১ চুয়াডাঙ্গা জেলা পুলিশ সদ্য ভূমিষ্ঠ ২৭ টি কন্যা শিশুর পরিবারকে পাঠালেন ফুল ও নতুন পোশাক জামালপুরের মেলান্দহে পৌর আওয়ামী লীগের যৌথ কর্মী সভা অনুষ্ঠিত

নওগাঁয় রাজশাহী ও রংপুর বিভাগের খাদ্য কর্মকর্তাদের সাথে মতবিনিময়সভা খাদ্যমন্ত্রীর

নওগাঁ প্রতিনিধিঃ
  • Update Time : বুধবার, ২৫ নভেম্বর, ২০২০
  • ২৬ Time View

খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার এমপি বলেছেন কৃষকরাই এদেশের প্রাণ। কৃষক বাঁচলে দেশ বাঁচবে। এই কথা বিবেচনা করেই বর্তমান সরকার কৃষকদের উৎপাদিত ধাসহ বিভিন্ন ফসলের নায্য মুল্য নিশ্চিত করতে বদ্ধপরিকর। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে পরিচালিত আওয়ামীলীগ সরকার কৃষকদের মাঝে বিভিন্ন ফসলভিত্তিক নগদ টাকা, বীজ, সার ও কৃষি সামগ্রী প্রনোদান হিসেবে বিতরন করে কৃষকদের উৎসাহিত করছে। কাজেই এ দেশের কৃষখরা এখন ভালো আছেন।

মন্ত্রী বুধবার বিকেল ৪টা থেকে নওগাঁয় জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে আমন সংগ্রহ ২০২০-২০২১ উপলক্ষে খাদ্য বিভাগীয় রাজশাহী ও রংপুর বিভাগের কর্মকর্তাদের সাথে এক মতবিনিময়সভায় প্রধান অতিথি’র বক্তব্যে এ কখা বলেছেন।

নওগাঁ’র জেলা প্রশাসক মোঃ হারুন-অর-রশিদ-এর সভাপতিত্বে আয়োজিত এ মত বিনিময়সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন খাদ্য মন্ত্রনালয়ের সচিব মোছাঃ নাজমানারা খানুম এবং খাদ্য বিভাগের মহা-পরিচালক সারওয়ার মাহমুদ। মতবিনিময়সভায় নওগাঁ’র পুলিশ সুপার প্রকৌশলী আব্দুল মান্নান মিয়া, রাজশাহী বিভাগের বিভাগীয় খাদ্য কর্মকর্তা রায়হানুল কবির, রংপুর বিভাগের বিভাগীয় খাদ্য কর্মকর্তা মোঃ আব্দুস সালাম, জেলা চাউল কল মালিক গ্রæপের সভাপতি আলহাজ্ব মোঃ রফিকুল ইসলাম প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

খাদ্যমন্ত্রী বলেন দু’টি কারনে সরকার মুলত খাদ্যশষ্য ক্রয় করে মজুদ করে। প্রথমত কৃষকদের উৎপাদিত পণ্যের নায্যমুল্য নিশ্চিত করতে এবং দ্বিতীয়ত দেশের অপদকালীন সময়ে সাধারন মানুষদের স্বল্প মুল্যে এবং বিনামুল্যে বিতরন করে সংকট মোকাবেলার জন্য। সরকার মিল মালিকদের নানাভাবে সহযোগিতা প্রদান করে তাদের মিল প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ন অবদান রাখে। এখন মিল মালিকদেরও উচিত খাদ্য শষ্য সংগ্রহের ক্ষেত্রে সরকারকে সহযোগিতা করা। খাদ্য সংগ্রহ কার্যক্রমে সরকার মিলমালিকদের যে লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারন করে দিয়েছে তা সঠিকভাবে পুরন করে সরকারের এই উদ্যোগকে সফল করতে আহবান জানিয়েছেন খাদ্যমন্ত্রী।

খাদ্যমন্ত্রী দেশে চলমান পরিস্থিতি বাখ্যা করে বলেন করোনা পরিস্থিতিতেও দেশে খাদ্য উৎপাদন সামান্যতমও কমেনি। এমন কি সরকারী বিশেষ ব্যবস্থায় এক জেলা থেকে অন্য জেলায় শ্রমিক পাঠিয়ে কৃষকদের ধান কাটা মাড়াইয়ের ব্যবস্থা করেছে।

খাদ্যমন্ত্রী বলেছেন অবৈধভাবে যারা ধান ক্রয় করে গুদামজাত করে রেখে বাজারে কৃত্রিম সংকট তৈরী করবে তারা অপরাধী। সরকার এই কৃত্রিম সংকট বরদাস্ত করবেনা। সরকার তাদের কঠোরভাবে দমন করবে।

তিনি আরও বলেছেন কোন কোন মিলার বিভিন্ন অকার্যকর প্রতিশ্রæতি দিয়ে নানাভাবে সরকারকে বিভ্রান্ত করার অপকৌশল করে থাকেন। মিলারদের এই অপকৌশল থেকে বেরিয়ে আসতে অনুরোধ করেন। বাজারে চালের চাহিদার থেকে মিল বেশী হওয়ায় অনেকে ধান ক্রয় করে মজুদ করে রাখে আবার অনেক মিলাররা অধিক লাভের আশায় বেশী ধান ক্রয় করে মজুদ করে থাকেন। এ থেকে বেরিয়ে এসে সরকারকে সহযোগিতা না করলে সরকারও কঠোর হতে বাধ্য থাকবে।

এই মতবিনিময়সভায় রাজশাহী ও রংপুর বিভাগের বিভাগীয় খাদ্য কর্মকর্তা, সকল জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক, বিভিন্ন জেলার চাউল কল মালিক গ্রæপের নেতৃবৃন্দ, ব্যবসায়ীবৃন্দ এবং স্থানীয় সাংবাদিকবৃন্দ অংশ গ্রহণ করেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

posted by: মোঃ জহিরুল ইসলাম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
Copyright © by somoy songjog 24 | Developed by Md. Rajib