শনিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৩:৫৯ অপরাহ্ন
মুজিব বর্ষ
শিরোনাম :
বাগেরহাটে ইউপি চেয়ারম্যানকে হত্যা মামলায় ফাসানোর চেষ্টার অভিযোগ একমাসেও উদ্ধার হয়নি অপহৃত স্কুল শিক্ষার্থী, পাচারের শঙ্কা পরিবারের নির্বাচন পরবর্তী পরাজিত ও বিজয়ী প্রার্থীর সমার্থকদের সংঘষর্, উভয় পক্ষের ২০জন আহত শার্শায় উপজেলা ছাত্রদলের সাংগঠনিক সভা অনুষ্ঠিত শার্শায় মাদ্রাসা ছাত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টা ও শ্লীলতা হানির অভিযোগ আমতলীসহ উপকূলের গ্রামাঞ্চলে মাছ ধরতে বাঁশের তৈরী ফাঁদ ‘চাঁই’ বিক্রির ধুম আমতলীতে স্ত্রীকে এসিড মেরে জলসে দেয়া ও গুলি করে হত্যার হুমকি বিরামপুরে স্বেচ্ছাসেবক দলের পরিচিতি সভা ও দোয়া মাহফিল আমতলীতে ‘মৃত’ ব্যক্তি করোনা টিকা নিতে চান ৮ দিনেও খোঁজ মেলেনি চুরি হওয়া নবজাতকের
সিলেট বিভাগের সকল জেলায় জেলা প্রতিনিধি আবশ্যক। আগ্রহীগন যোগাযোগ করুন somoysongjog24@gmail.com

তিস্তার পানি প্রবাহিত হচ্ছে বিপদসীমার উপরে খুলে দেয়া হয়েছে ৪৪টি জলকপাট

সোহেল রানা ,নীলফামারী
  • Update Time : শনিবার, ৪ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ১৬ Time View

টানা বর্ষন, উজানের পাহাড়ি ঢল আর ভারতের গজলডোবার সবকটি জলকপাট খুলে দেওয়ায় তিস্তার পানি বেড়েছে কয়েকগুণ। দফায় দফায় পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় প্লাবিত হয়েছে তিস্তার তীরবর্তী প্রায় ৪হাজার পরিবার। পানি নিষ্কাশনের জন্য খুলে রাখা হয়েছে তিস্তা ডালিয়া ব্যারেজের ৪৪টি জলকপাট। খাদ্য সংকট ও বিশুদ্ধ খাবার পানির চরম অভাবে রয়েছে বন্যাকবলিত এলাকার মানুষ। ইতোমধ্যে প্রসাশনের পক্ষ থেকে ত্রাণ দেয়া হলেও বাদ পড়েছে অনেক পরিবার। তবে ত্রাণ চায় না বন্যাকবলিত এসব এলাকার মানুষ। শুধু চায় নদী শাসন বাঁধ। আর বাঁধ নির্মাণ হলেই প্রতি বছর রেহাই পাবে লাখ লাখ টাকার সম্পদ। পানি বিপদসীমার উপড়ে উঠা নামার কারণে ভাঙছে ফসলি জমি, বাড়িঘর ও বন্যা প্রতিরক্ষা বাঁধ।
পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) সূত্র জানায়, নীলফামারী ডালিয়া পয়েন্টে তিস্তা ব্যারেজে বিপদসীমার ৩০সেন্টিমিটার উপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছে। তিস্তা নদীর পানি বাড়ার সাথে সাথে জেলার ডিমলা উপজেলার পূর্ব ছাতনাই, খগাখড়িবাড়ি, টেপাখড়িবাড়ি, খালিশা চাঁপানী, ঝুনাগাছ চাঁপানী ও গয়াবাড়ি ইউনিয়নের তিস্তা নদীবেষ্টিত প্রায় ১৫টি চর প্লাবিত হয়।
বন্যাকবলিত এলাকার হাজারো মানুষ বলেন, বাঁধ না থাকায় প্রতিবছর নদী গর্ভে বিলিন হয় হাজার হাজার ঘরবাড়ি ও ফসলী জমি। তিস্তার দু’ধারে বাঁধ নির্মান হলে তীরবর্তী হাজার হাজার পরিবারকে এভাবে প্রতিবছর প্লাবিত হওয়ার হাত থেকে মুক্তি দিবে। আমরা ত্রাণ চাই না, চাই শুধু নদী শাসন বাঁধ।
পূর্ব ছাতনাই ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান আবদুল লতিফ খান বলেন, বন্যা পরিস্থিতির উন্নতির পর বৃহস্পতিবার রাত থেকে তিস্তায় আবারও ঢল আসতে থাকে। সকাল নয়টা পর্যন্ত ইউনিয়নের পূর্ব ছাতনাই ও ঝাড়সিংহের স্বর চরের ১হাজার ১৫০পরিবার বন্যাকবলিত হয়ে পড়ে। পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকায় অনেকে নিরাপদ আশ্রয়ে সরে আসছে।
ডিমলা উপজেলার ঝুনাগাছ চাঁপানী ইউপি চেয়ারম্যান মো. আমিনুর রহমান বলেন, আমার ইউনিয়নের প্রায় এক হাজার পরিবার পানিবন্দি হয়ে পড়েছে।
এ বিষয়ে পাউবো ডালিয়া ডিভিশনের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. আসফাউদদৌলা বলেন, উজানের ঢলে তিস্তা নদীর পানি বাড়ছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে তিস্তা ব্যারেজের সব কটি (৪৪টি) জলকপাট খুলে রেখে পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। শুক্রবার সকাল ৯টায় তিস্তা নদীর পানি বিপদসীমার ৩৫সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল।
পাউবোর ডালিয়া ডিভিশনের বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্র সূত্র জানায়, তিস্তা ব্যারেজের দোয়ানী এলাকায় শুক্রবার তিস্তা নদীর পানি সকাল ৬টায় ৫২দশমিক ৯০মিটার, সকাল ৯টায় ৫২দশমিক ৯৫মিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল। ওই পয়েন্টে তিস্তা নদীর বিপদসীমা ৫২দশমিক ৬০মিটার।
জেলা প্রশাসক হাফিজুর রহমান চৌধুরী বলেন, আমরা বন্যায় প্লাবিত পরিবার গুলোকে খাদ্য সহায়তা প্রদান করে আসছি। বাঁধটাকে পূর্ণ নির্মাণ করার লক্ষ্যেও কাজ করছি। আমাদের কাছে ক্ষতিগ্রস্থ ঘরবাড়ি পূর্ণনির্মাণের জন্যও পর্যাপ্ত বাজেট রয়েছে। পানি কমে গেলে বাঁধ স্থায়ী ভাবে মেরামত করার পাশাপাশি ক্ষতিগ্রস্থ ঘরবাড়ি মেরামত করা হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

posted by: কাওসার হামিদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
Copyright © by somoy songjog 24 | Developed by Md. Rajib