শুক্রবার, ০৭ মে ২০২১, ০৭:৩৩ পূর্বাহ্ন
মুজিব বর্ষ
শিরোনাম :
নীলফামারীতে ভোকেশনাল ট্রেনিং কার্যক্রম বাস্তবায়নে বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হিলিতে ৪৫০পিছ ইয়াবাসহ আটক ২ এখনও থেমে থেমে জ্বলে উঠছে বিভিন্ন জায়গা সুন্দরবনের আগুন, পুড়েছে ১০ একর বনভূমি পারিবারিক কবর স্থানে চির নিদ্রায় শায়িত হলেন উপজেলা চেয়ারম্যান মাহফুজুর রহমান কবি নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ নেতা কায়েসের ঈদ উপহার নওগাঁয় ব্যাংক থেকে টাকা উত্তোলন করে নিয়ে যাবার সময় চুরি করে নেওয়ার এক ঘন্টার মধ্যে পাঁচ সদস্য গ্রেফতারঃ চুরি যাওয়া পঞ্চাশ হাজার টাকা উদ্ধার জীবননগর শিয়ালমারী পশুহাটে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান পরিচালনা চুয়াডাঙ্গা পুলিশ লাইন্স ড্রিলশেডে মাসিক কল্যাণ সভা ও ঈদ উপহার বিতরণ আমতলীর কান্তার খালের উপর ঝুকিপূর্ন লোহার সেতু জনগনের চলাচলে ভোগান্তি ঈদুল ফিতর উপলক্ষে আমতলীর ৩৫ হাজার ৫৮৬ টি পরিবার পাচ্ছে আর্থিক সহায়তা
সিলেট বিভাগের সকল জেলায় জেলা প্রতিনিধি আবশ্যক। আগ্রহীগন যোগাযোগ করুন somoysongjog24@gmail.com

গুচ্ছ পদ্ধ‌তির পরীক্ষার তা‌রিখ নি‌য়ে সংশয়

জবি প্রতিনিধি:
  • Update Time : রবিবার, ২ মে, ২০২১
  • ২২ Time View
দেশের ২০টি বিশ্ববিদ্যালয়ের গুচ্ছ পদ্ধতির ভর্তি পরীক্ষার তারিখ নিয়ে সংশয় তৈরি হয়েছে। মহামারি করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় সময়মতো পরীক্ষা আয়োজন নিয়ে বিপাকে পয়েছেন ভর্তি পরীক্ষা আয়োজক কমিটির সদস্যরা। নির্ধারিত সময়ে ভর্তি পরীক্ষা আয়োজন করে নিয়েও অনিশ্চয়তায় রয়েছেন তারা। গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষার তারিখে নিয়ে সংশয় মিলেছে পরীক্ষা সমন্বয় কমিটির সাথে সংশ্লিষ্ট একাধিক উপাচার্যের কন্ঠেও৷ মিলেছে পরীক্ষার তারিখ পেছানোর আভাসও।
জানা যায়, গত ১ এপ্রিল থেকে ২০টি বিশ্ববিদ্যালয়ে সমন্বিত ভর্তি আবেদন শুরু হয়। প্রথমে আবেদনের সময়সীমা ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত করা হলেও সেটি লকডাউন শেষ হওয়ার পরবর্তী ১০দিন পর্যন্ত বৃদ্ধি করা হয়েছে। আর আগামী ১৯ জুন ভর্তি পরীক্ষা আয়োজনের কথা রয়েছে। এদিকে চলমান লকডাউন আগামী ৫ মে পর্যন্ত বৃদ্ধি করা হয়েছে। এটি ঈদ পর্যন্ত বাড়ানোর আভাস পাওয়া গেছে। এই অবস্থায় শিক্ষার্থীদের আবেদনের সময় ঈদ শেষ হওয়ার পর ১০ দিন পর্যন্ত থাকবে। আবেদনের সময় বৃদ্ধির ফলে ভর্তি পরীক্ষা আয়োজনের সামগ্রিক কাজও পিছিয়ে যাবে। ফলে পরীক্ষা পেছানো ছাড়া বিকল্প কোনো উপায় থাকবে না।
অন্যদিকে প্রাথমিক আবেদন শেষ হওয়ার পর চূড়ান্ত আবেদন গ্রহণ করা হবে। এটি করতে জুন মাস লেগে যাবে। এরপর প্রশ্ন প্রণয়ন, প্রশ্ন ছাপা, সংশ্লিষ্ট কেন্দ্রে প্রশ্ন নিয়ে যাওয়াসহ আরও অনেক কাজ থেকে যায়। বিধি নিষেধ চলমান থাকায় এ কাজগুলো করা সম্ভব হচ্ছে না। ফলে নির্ধারিত সময় ভর্তি পরীক্ষা আয়োজন করা প্রায় অসম্ভব হয়ে যাবে।
এদিকে করোনাভাইরাসের কারণে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা পেছানো হয়েছে। নতুন সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, ক ইউনিটের পরীক্ষা হবে ৬ আগস্ট, খ ইউনিটের ৭ আগস্ট, গ ইউনিটের ১৩ আগস্ট ও ঘ ইউনিটের পরীক্ষা হবে ১৪ আগস্ট। এছাড়া চ ইউনিটের পরীক্ষা হবে ৩১ জুলাই।
এ বিষয়ে সাধারণ, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় গুচ্ছের যুগ্ম আহ্বায়ক ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) উপাচার্য (দায়িত্বপ্রাপ্ত) অধ্যাপক ড. কামালউদ্দিন আহমেদ বলেন, “যেহেতু পরীক্ষা জুন মাসে ছিল স্বাভাবিক হলে জুলাইতে নেওয়া যাবে। এটা একা আমার সিদ্ধান্ত নয় গুচ্ছ কমিটির সবাই বসে সিদ্ধান্ত নিবেন। আবেদনের সময় লকডাউনের ১০ দিন পর পর্যন্ত থাকবে। পরীক্ষার তারিখের ব্যাপারে এখনো কোন সিদ্ধান্ত হয়নি।”
ভর্তি পরীক্ষার তারিখ নিয়ে শাহাজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবিপ্রবি) উপাচার্য এবং গুচ্ছভুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর উপাচার্যদের সমন্বয়ে গঠিত কমিটির আরেকজন যুগ্ম-আহ্বায়ক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ বলেন, “এখনো আমরা মিটিং এ বসিনি। তারিখ পিছাবে এ ব্যাপারে সন্দেহ নেই। এখনকার অবস্থা লকডাউনে আমরা আবেদনের সময় বাড়িয়েছি। লকডাউন ৫ তারিখ শেষ হলে আরো ১০ দিন চলে যাবে মানে ১৫ তারিখ। আগামী ৫ বা ৬ তারিখের মিটিং এ এসব ব্যাপারে আলোচনা হবে।”
এ ব্যাপারে গুচ্ছ বিশ্ববিদ্যালয়সমূহের সমন্বিত ভর্তি কমিটির সচিব প্রকৌশলী মোঃ ওহিদুজ্জামান বলেন, “করোনা ভাইরাসের সামগ্রিক পরিস্থিতি বিবেচনা করলে হয়তো ১৯ জুন ভর্তি পরীক্ষা আয়োজন করা সম্ভব হবে না। করোনার কারণে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় তাদের ভর্তি পরীক্ষা পিছিয়েছে। আমাদেরও হয়তো তেমনই কোনো সিদ্ধান্ত নিতে হবে। বিধিনিষেধ থাকায় পরীক্ষা সংক্রান্ত অনেক কাজ করা সম্ভব হচ্ছে না। আমরা শিগগিরই এসব বিষয়ে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেবো।”
গুচ্ছভুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়গুলো হলো: ঢাকার জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়, হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়, জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়, যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়, পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়, রাঙ্গামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ডিজিটাল ইউনিভার্সিটি, শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয়, বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় এবং পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়।

নিউজটি শেয়ার করুন

posted by: কাওসার হামিদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
Copyright © by somoy songjog 24 | Developed by Md. Rajib