বৃহস্পতিবার, ২৯ অক্টোবর ২০২০, ০১:১২ অপরাহ্ন
মুজিব বর্ষ
শিরোনাম :
আমতলীতে পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের ১৯ সদস্যের মধ্যে ঋণ বিতরণ রংপুরে স্কুলছাত্রী ধর্ষণের ঘটনায় এএসআই রাহেনুল জড়িত বঙ্গবন্ধু রেল সেতুর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন ২৯ নভেম্বর রেলমন্ত্রী। সম্প্রসারিত মেডিকেল সেন্টারে প্যাথলজি ল্যাব স্থাপন কাজের উদ্বোধন বনদস্যুদের গুলিতে আহত মৎসজীবি নজির অবশেষে মৃত্যুর কাছে হেরে গেলেন বাগেরহাটে ছেলে হত্যার বিচার ও জীবনের নিরাপত্তার দাবীতে বৃদ্ধের সংবাদ সম্মেলন বাগেরহাটে ভুল অপারেশনে মৃত্যুর অভিযোগ, চিকিৎসকের শাস্তির দাবিতে সংবাদ সম্মেলন বাগেরহাটে জেলা পুষ্টি সমন্বয় কমিটির সভা ঝালকাঠিতে মা ইলিশ ধরার দায়ে আরও ২ জেলের কারাদন্ড ঝালকাঠিতে আর্সেনিকমুক্ত পানি বিষয়ক একদিনের কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে

খাগড়াছড়ি-পানছড়ি সড়কে চেঙ্গী নদীর ভাঙ্গন,ব‍্যহৃত হতে পারে যান চলাচলে।

মোঃ সাইফুল ইসলাম, খাগড়াছড়ি জেলা প্রতিনিধিঃ
  • Update Time : বুধবার, ৭ অক্টোবর, ২০২০
  • ৪২ Time View

প্রতি বর্ষায় ভেঙে যায় খাগড়াছড়ি চেঙ্গি নদীর পাড়ের কোনো না কোনো অংশ। এবার নদীর পাড় ভাঙতে থাকায় যে কোনো মুহূর্তে বন্ধ হয়ে যেতে পারে খাগড়াছড়ি-পানছড়ি সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা।সড়ক বিভাগ থেকে রাস্তাটি সাময়িক রক্ষার জন্য ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। তবে স্থানীয়রা চান স্থায়ী সমাধান।

খাগড়াছড়ি সদর উপজেলার ৪ নম্বর পেরাছড়া ইউনিয়নের গাছবান উত্তর হেডম্যানপাড়া এলাকা দিয়ে খাগড়াছড়ি-পানছড়ি প্রধান সড়কের প্রায় দুশ’ ফুট রাস্তা নদীগর্ভে বিলীন হওয়ার পথে। অথচ জেলা সদর থেকে পানছড়ি যাওয়ার একমাত্র যোগাযোগের সড়ক এটি।ইতোমধ্যে ভাঙন রোধে সড়ক বিভাগ সেখানে বালুর বস্তা ফেলেছে। তবে এবারের বৃষ্টিতে পাড়ঘেঁষা সড়কটি যে কোনো মুহূর্তে ভেঙে নদীগর্ভে বিলীন হওয়ার আশঙ্কা করছেন স্থানীয়রা।স্থানীয় বাসিন্দা তুষার চাকমা ও চিক্কোমিলে চাকমা বলেন, ‘নদীর পাড় থেকে ভাঙন হতে হতে এখন রাস্তার কিছু অংশও ভেঙে গেছে। ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ায় সেখানে বস্তা দেওয়া হয়েছে। এভাবে ভাঙন রোধ করা সম্ভব না। এভাবে চলতে থাকলে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যাবে। ’

ওই এলাকার বাসচালক আব্দুল মালেক বলেন, ‘গাছবানের অংশটুকু খুবই বিপজ্জনক। ওপরে রাস্তার প্রলেপ থাকলেও নিচে মাটি নেই। এতে যান চলাচলের সময় রাস্তাটি দেবে যেতে পারে। ’খাগড়াছড়ি সড়ক ও জনপদ বিভাগের উপবিভাগীয় প্রকৌশলী সবুজ চাকমা বলেন, ‘সড়কটি রক্ষায় প্রাথমিকভাবে নদীর পাড়ে আমরা গাছের পাইলিং করেছি, বস্তা ফেলেছি। তবে তা ক্ষণস্থানী। আমরা ইতোমধ্যে পানি উন্নয়ন বোর্ডকে অনুরোধ করেছি সেখানে যেন ভাঙন রোধে স্থায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হয়। ’এ বিষয়ে পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. আবু বকর সিদ্দিক ভূঁইয়া জানান, ঝুঁকিপূর্ণ এলাকা তিনি পরিদর্শন করেছেন। ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি অবহিত করে প্রাক্কলনও তৈরি করেছেন বলে আশ্বস্ত করেন তিনি।

অন্যদিকে, স্থানীয়রা ভাঙন রোধে দ্রুত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিয়ে সড়কটি সংস্কারের দাবি জানিয়েছেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

posted by: মোঃ জহিরুল ইসলাম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
Copyright © by somoy songjog 24 | Developed by Md. Rajib