শুক্রবার, ২৩ অক্টোবর ২০২০, ১২:০৯ পূর্বাহ্ন
মুজিব বর্ষ
শিরোনাম :
অতিবর্ষণে আমতলীর জন-জীবন বিপর্যস্থ হয়ে পড়েছে তলিয়ে গেছে রোপা আমন ধানের তেসহ মাছের ঘের, পুকুর ও পানের বরজ কলারোয়ায় গ্রীষ্মকালীন টমেটো ও মাঠ দিবসে সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী। রংপুরে নারী সুরক্ষা বাস্তবায়ন পরিষদের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত নারী নির্যাত‌নের বিরু‌দ্ধে জনস‌চেতনতা বৃদ্ধিতে ফেস্টুন ও বেলুন উড়িয়ে কর্মসূচী‌ পালিত কচুয়ায় নারী জনপ্রতিনিধিদের পরিকল্পনা ও বাজেট বিষয়ক প্রশিক্ষণ বাগেরহাটে নিরাপদ সড়ক দিবস পালিত বাগেরহাটে ভোর থেকে বিরামহীন বৃষ্টি, বিপর্যস্ত জন জীবন নোয়াখালী সুবর্ণচরে ৫ টুকরো করে হত্যার রহস্য উদঘাটন,ছেলেসহ আটক ৫ আজ থেকে টানা ৬ দিন বন্ধ থাকছে হিলি স্থলবন্দর দিয়ে আমদানি-রপ্তানি বন্ধ মাধবপুরে ভারতীয় মদ উদ্ধার

কুড়িগ্রামে ‘সুলতানা সরোবর’ এ মুগ্ধ কুড়িগ্রামবাসী

Reporter Name
  • Update Time : মঙ্গলবার, ২১ মে, ২০১৯
  • ১০০ Time View

আব্দুর রহমান রাসেল,রংপুর ব্যুরো:

কুড়িগ্রামের সাধারণ জনগণ এই পুকুটির এর নাম দিয়েছে ”সুলতানা সরোবর” এ মুগ্ধ হয়েছেন কুড়িগ্রামবাসী। বিকেল হলেই দৃষ্টিনন্দন এই পুকুরটি দেখতে ভিড় জমায় দর্শনার্থীরা। রাতের বেলা দেখলে মনে হয় পুকুরটি এখন যেন উন্নত কোন দেশের দর্শনীয় স্থান। অনেকেই এখানে আসেন সেলফি তুলতে কিংবা প্রিয়জনকে নিয়ে ঘুরাতে। এই প্রথম সৌন্দর্যবর্ধিত কুড়িগ্রামে এমন একটি পুকুর উপহার দিলেন জেলা প্রশাসক সুলতানা পারভীন।
সূত্রে জানা যায়, ১৯৭৮ সালে কুড়িগ্রাম শহরে নিউ টাউন পার্ক পুকুর খনন করা হয়। কুড়িগ্রাম কালেক্টরেট ভবন ও জজ কোর্ট ভবনের মধ্যবর্তী স্থানটিতে এই পুকুরটি দীর্ঘদিন যাবত পরিত্যক্ত ছিল। বিভিন্ন সময় পুকুর পাড়ে অসামাজিক কার্যকলাপ চলার অভিযোগ ওঠে। এরই পরিপ্রেক্ষিতে পুকুরটি সংস্কার করে এর পাড়ে সৌন্দর্যবর্ধনের উদ্যোগ গ্রহণ করেন কুড়িগ্রামের চৌকস বর্তমান জেলা প্রশাসক মোছাঃ সুলতানা পারভীন। তাঁর দক্ষ হাতের ছোঁয়ায় পুকুরটি দ্রুত সংস্কার লাভ করলেও ওয়াকওয়ে সহ আরো অনেক কাজ এখনও বাকী। ইতোমধ্যে পুকুর সংস্কারের বিষয়টি সর্ব মহলে প্রশংসিত হলেও এর নামকরণ নিয়ে অহেতুক কিছু বির্তক তৈরি হওয়ায় দুঃখ প্রকাশ করেছেন সচেতন মহল।
কুড়িগ্রাম জেলা প্রশাসক মোছাঃ সুলতানা পারভীন এর সম্মানার্থে কুড়িগ্রামের সাধারণ জনগণ সহ সুধী সমাজ এর নাম দিয়েছে ”সুলতানা সরোবর”। এই নামকরণের পর থেকে মুষ্টিমেয় কিছুসংখ্যক ব্যক্তি সোশ্যাল মিডিয়ায় বিভ্রান্তকর মন্তব্য সহ অনাকাঙ্ঘিত ও অবাঞ্চিত কিছু পোস্ট দেয়ায় কুড়িগ্রামের সাধারণ জনমনে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। বিশেষ করে একটি অনলাইন নিউজ মিডিয়ায় ”কাবিখা’র টাকায় পুকুর সংস্কার করে ডিসি’র নামে নামকরণ! শিরোনামে একটি সংবাদ প্রকাশিত হলে সমগ্র কুড়িগ্রাম জেলায় এর ব্যাপক প্রতিক্রিয়া পরিলক্ষিত হয়।


কুড়িগ্রাম জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের জেলা কমান্ডার সিরাজুল ইসলাম টুকু বলেন, বর্তমান জেলা প্রশাসক মোছাঃ সুলতানা পারভীন উলিপুরে মুক্তিযোদ্ধাদের দাবির প্রতি সংহতি ও অকুন্ঠ সমর্থন সহ সার্বিক সহযোগিতার মনোভাব নিয়ে ”বিজয়মঞ্চ” এর নির্মাণ কাজ বেগবান করেন। এই বিজয় মঞ্চ পরিদর্শনকালে পার্শ্ববর্তী পুকুর সংস্কারের বিষয়টি চলে আসলে আমি সহ কুড়িগ্রামের আরো অনেকেই নিউ টাউন পার্ক পুকুরটি সংস্কারের অনুরোধ জানাই । সেদিনই আমরা জেলা প্রশাসক মহোদয়কে বলেছিলাম, কুড়িগ্রাম কালেক্টরেট সংলগ্ন পার্ক পুকুরটির নাম হবে ”সুলতানা সরোবর”।
বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম টুকু আরো বলেন, দ্রুত সময়ের মধ্যে জেলা প্রশাসক মহোদয় এই পুকুরটির সংস্কার কাজ করে কুড়িগ্রামবাসীকে কৃতজ্ঞতায় আবদ্ধ করেছেন। একজন মুক্তিযোদ্ধার সন্তান হিসাবে কুড়িগ্রামে আন্তরিকভাবে কাজ করা এই জেলা প্রশাসকের নামে সামান্য একটি পুকুরের নামকরণ নিয়ে যারা বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে তাদের নিশ্চয়ই কোন কুমতলব আছে। নিউ টাউন পার্ক পুকুরের নাম ”সুলতানা সরোবর”ই বহাল থাকবে ইনশাআল্লাহ।
এ প্রসঙ্গে কুড়িগ্রামের সংস্কৃতিমনা এবং এনজিও ব্যক্তিত্ব, বিশ্ব ভাওয়াইয়া পর্ষদ এর সভাপতি খ ম আলী সম্রাট বলেন, অবহেলিত কুড়িগ্রামের সার্বিক উন্নয়নে আমরা জেলা প্রশাসক মোছাঃ সুলতানা পারভীনের কর্মকান্ডে কৃতজ্ঞ। তিনি তাঁর গতানুগতিক দায়িত্বের বাইরে প্রচুর কাজ করে যাচ্ছেন। আমরা নতুন শহরের বাসিন্দা। কালেক্টরেট সংলগ্ন এই পার্ক পুকুরটি দীর্ঘদিন যাবৎ পরিত্যক্ত ছিল। জেলা প্রশাসকের দপ্তর সংলগ্ন এই পুকুর কেন্দ্রিক বিভিন্ন অসামাজিক কর্মকান্ড আগের ডিসি গণ অবহিত থাকলেও কেউ এর সংস্কার অথবা প্রতিকারের ব্যবস্থা গ্রহণ করেননি। বর্তমান জেলা প্রশাসক মোছাঃ সুলতানা পারভীন স্বপ্রণোদিত হয়ে যা করেছেন তা অবশ্যই প্রশংসা ও ধন্যবাদ পাওয়ার যোগ্য। তাঁর প্রতি কৃতজ্ঞতা ও সম্মান প্রদর্শন করে যদি কুড়িগ্রামবাসী ”সুলতানা সরোবর” নামে পার্ক পুকুরের নামকরণ করে তাহলে আমি যথার্থ নামকরণ করা হয়েছে বলে মনে করি।
কুড়িগ্রাম জেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী এবং কলেজ মোড়স্থ ”রূপসী বাংলা” হোটেলের স্বত্বাধিকারী জিল্লুর রহমান চৌধুরী টিটু এই নামকরণ প্রসঙ্গে দুঃখ প্রকাশ করে বলেন, গুটি কয়েক অনলাইন একটিভিস্ট অথবা দুষ্ট লোক মানেই সমগ্র কুড়িগ্রামবাসী নয়। নিরীহ ও ভাল মানুষের জনপদ কুড়িগ্রামে কখনও কোন সম্মানী ব্যক্তিকে অপদস্থ করা হয় না। যারা পার্ক পুকুরের ”সুলতানা সরোবর” নামকরণ নিয়ে বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে তাদের জানা উচিত অতীতে অনেক সরকারি কর্মকর্তার নামে কুড়িগ্রামে বিভিন্ন নামকরণ রয়েছে। সাবেক মহকুমা প্রশাসক গওহর সাহেবের নামে ”গওহর পার্ক” ইরশাদুল হক সাহেবের নামে কুড়িগ্রামে রাস্তাও আছে। বর্তমান জেলা প্রশাসক মোছাঃ সুলতানা পারভীন অনেক ভাল কাজ করে জেলাবাসীর অন্তর জয় করেছেন। নিউ টাউন পার্ক পুকুরের নাম ”সুলতানা সরোবর”ই থাকবে। এটা নিয়ে কেউ মিথ্যা প্রোপাগান্ডা ছড়িয়ে হালে পানি পাবে না। কুড়িগ্রামের আরো অসংখ্য স্থাপনা আছে যা কুড়িগ্রামের সম্মানীয় ব্যক্তিবর্গের নাম দিয়ে সম্মান প্রদর্শন করা যেতে পারে।
এছাড়াও কুড়িগ্রামের অনেক পেশাজীবী, শ্রমজীবী, সাধারণ জনতা সহ সুধীজন বলেন, কুড়িগ্রাম কালেক্টরেট ভবন সংলগ্ন নিউ টাউন পার্ক এর নাম ”সুলতানা সরোবর” নামকরণ সঠিক ও যথার্থ। এ নিয়ে বিভ্রান্তির কোন অবকাশ না রাখাই উত্তম।

নিউজটি শেয়ার করুন

posted by: সময় সংযোগ টুয়েন্টিফোর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
Copyright © by somoy songjog 24 | Developed by Md. Rajib