রবিবার, ২৫ অক্টোবর ২০২০, ১১:২৫ অপরাহ্ন
মুজিব বর্ষ

উজিরপুরে সরকারি গাছ বিক্রি করলেন আওয়ামীলীগ নেতা সাংবাদিক ম্যানেজ করতে বিভিন্ন মহলে দৌড়ঝাপ?

Reporter Name
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ১১ জুলাই, ২০১৯
  • ৫৯ Time View

উজিরপুর প্রতিনিধিঃ

বরিশালের উজিরপুরে সরকারি গাছ বিক্রি করলেন প্রভাবশালী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ নেতা। সাংবাদিক ম্যানেজ করতে উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এস.এম জামাল হোসেন এর নিকট দ্বারস্থ, ‘অবশেষে মিশন ব্যর্থ”। জানা যায় ওটরা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি প্রভাবশালী নেতা আঃ খালেক রাড়ী যোগীরকান্দা প্রানী সম্পদ অধিদপ্তর ও কমিউনিটি স্বাস্থ্য ক্লিনিকের সরকারি জমি থেকে কয়েক লক্ষাধীক টাকার বিভিন্ন প্রজাতির বিশাল আকৃতির গাছ জোরপূর্বক বিক্রি করে টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় প্রশাসনকে ফাঁকি দিয়ে প্রতিষ্ঠানের কাউকে কিছু না জানিয়ে তরিঘরি করে ২ লক্ষাধীক টাকার গাছ ১ লক্ষ টাকায় একই এলাকার গাছ ব্যবসায়ী শামছুল হক এর নিকট বিক্রি করে দিয়েছেন খালেক রাড়ী। এব্যাপারে আঃ খালেক রাড়ীর কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান আমি সরকারি গাছ বিক্রি করিনি। তবে মসজিদ উন্নয়নের জন্য মসজিদ কমিটির সভাপতি আনোয়ার হোসেন রাড়ী গাছ বিক্রি করেছেন। তবে আনোয়ার হোসেন রাড়ী সাংবাদিকদের জানান গাছ খালেক রাড়ী নেতৃত্বে বিক্রি হয়েছে। অপরদিকে গাছ ক্রয়কারী মোঃ সামছুল হক জানান সরকারি গাছ কিনা আমি জানিনা, তবে খালেক রাড়ীর নিকট থেকে গাছ ক্রয় করেছি। উপজেলা প্রানী সম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ সব্যসাচী মজুমদার জানান ওটরা ইউনিয়নের যোগীরকান্দা এলাকায় ১৯৮৮ সালে তৎকালীন উপজেলা পরিষদের মাধ্যমে প্রাণি সম্পদ অধিদপ্তরের নামে ০৫ শতাংশ জমি ঐ এলাকার শাহজাহান রাড়ী রেজিস্ট্রি করে দান করলে একটি ভবন নির্মিত হয়ে কার্যক্রম পরিচালিত হয়েছিল। বর্তমানে ভবনটি পরিত্যাক্ত থাকায় আমাদের খোজ খবর একটু কম। তবে সরকারি জমি থেকে কেউ গাছ বিক্রি করে থাকলে তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃ পঃ কর্মকর্তা ডাঃ এ.কে.এম সামছউদ্দিন জানান ওই স্থানে আমাদেরও একটি নতুন কমিউনিটি ক্লিনিক রয়েছে। ক্লিনিকের সামনের রাস্তা থেকে গাছ বিক্রি করা হয়েছে শুনেছি। তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। আরো জানা যায় তদবিরবাজ উপজেলা আওয়ামীলীগের এই প্রভাবশালী নেতা বিভিন্ন তদবির বানিজ্যে ব্যস্ত থাকেন। শুধু তাই নয় উপজেলা পরিষদের বিভিন্ন সরকারি কর্মকর্তাদের তার অযুক্তিক সুপারিশ না শুনলে বদলী সহ বিভিন্ন ভয়ভীতি ও হুমকী প্রদান করার অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে। উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি এস.এম জামাল হোসেন সাংবাদিকদের ডেকে নিয়ে বলেন কিছু কিছু বিষয় ছাড় দিতে হয়। অভিযুক্তরা আমার নিকটতম আত্নীয়। তাদের বিরুদ্ধে কোন সংবাদ প্রকাশ করা যাবেনা।

নিউজটি শেয়ার করুন

posted by: সময় সংযোগ টুয়েন্টিফোর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
Copyright © by somoy songjog 24 | Developed by Md. Rajib